ডেস্ক রিপোর্টার,১ফেব্রুয়ারি।।
চলতি মাসেই তৃণমূল কংগ্রেসের প্রদেশ কমিটি ঘোষণা দেবে তৃণমূল কংগ্রেস।তার আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের অশান্তির বুদ বুদ গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে রাজনীতির ময়দানে। আড়াআড়ি ভাবে প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেস দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে।এক পক্ষ সুবল ভৌমিক।অপর পক্ষে পুরানো তৃণমূলীরা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য রাজনীতিতে তৃণমূল কংগ্রেস নিজেদের কতটা মেলে ধরতে পারবে তা নিয়ে সন্দিহান খোদ রাজনীতিকরা।
প্রদেশ ঘাসফুল শিবিরের খবর, বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীরা দলের আহবায়ক সুবল ভৌমিককে মেনে নিতে পারছেন না।একই ভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট কৌশলী “আই-প্যাকের” কাজকর্ম নিয়ে বেজায় চটে আছে পুরানো তৃণমূলীরা। বিক্ষুব্ধ তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-কর্মীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সুবল ভৌমিককের কাজকর্ম নিয়ে সমালোচনার ঝর তুলছে। সুবল ভৌমিকের কার্টুন ছেপে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দিয়েছে দলীয় নেতা-কর্মীরা।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সুবল ভৌমিকের কার্টুন দিয়ে তারা আহ্বায়ককে নানান ভাবে কটাক্ষ করেছে। তারা সুবল ভৌমিককে “পাগল ভৌমিক” বলে আখ্যায়িত করেছে। সুবল ভৌমিক নাকি প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের আইটি সেল থেকে শুরু করে মহিলা তৃণমূল কমিটি, জেলা ও ব্লক কমিটিতে নিজের পছন্দের লোকদের বসানোর চেষ্টা করছেন। তৃণমূলের বিক্ষুব্ধ কর্মীদের অভিযোগ, দলের সব কয়টি কমিটি গঠন করার সময় তিনি প্রদেশ স্টিয়ারিং কমিটির সদস্যদের কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করার প্রয়োজনীয়তা বোধ করে নি। তৃণমূল কংগ্রেসে সুবল ভৌমিক এক নায়কতন্ত্র চালিয়েছেন বলে বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের।
তৃণমূল কংগ্রেসের বিক্ষুব্ধ গোষ্ঠির বক্তব্য, বঙ্গ নেতৃত্বও সুবল ভৌমিককে কিছু বলতে চাইছে না।অথচ তারাও জানেন সুবল ভৌমিকের কাজকর্মের কারণেই দলের মধ্যে অশান্তির বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে। রাজনীতিকদের বক্তব্য, রাজ্য রাজনীতিতে তৃণমূল কংগ্রেসের এখনো তেমন কোনো শক্তি নেই।শুধুমাত্র দলের সাংগঠনিক অটি বাঁধতে শুরু করেছিল।কিন্তু তাতেও বিপত্তি। সুবল ভৌমিক বনাম পুরানো তৃণমূল কর্মীদের ঝামেলা প্রকাশ্যে চলে এসেছে। আগামীদিনে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ যে ঘোর অন্ধকারের দিকে ধাবিত হচ্ছে তাও প্রকট হয়ে উঠছে বলেই মনে করছেন তৃণমূল কংগ্রেসের একাংশ কর্মী-সমর্থকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.