তেলিয়ামুড়া ডেস্ক,১এপ্রিল।।
অবশেষে মৃত্যুর চার দিন পর শুক্রবার সকালে আইনের ছাত্র অনল সরকারের কফিনবন্দি মৃতদেহ পৌঁছালো তার তেলিয়ামুড়া মোহরছড়া বাড়িতে।
অনলের মৃতদেহ বাড়িতে পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে গোটা এলাকার লোকজন। ভারী হয়ে উঠে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের আকাশ-বাতাস।তার বাড়িতে ছুটে যান রাজ্য বিধানসভার মুখ্য সচেতক কল্যাণী রায়। পরিবারের লোকেদের অভিযোগ, দিল্লির নয়ডা ভাড়া বাড়িতে অনলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
মৃত অনল সরকার ছিলেন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের একজন সক্রিয় কার্যকর্তা।
তেলিয়ামুড়া থানাধীন মোহরছড়া এলাকার বাসিন্দা হীরালাল সরকারের ছেলে অনল সরকার। অনল স্বভাবে ছিলো নম্ন,ভদ্র। উছাকাঙ্খী অনল দিল্লির এশিয়ান ল কলেজে ভর্তি হয়। সেই নয়ডা শহরে ভাড়া বাড়িতে থাকতো। মৃত অনলের পরিবারের লোকজন জানান, গত চার দিন আগে হঠাৎ সকালবেলা বাড়িতে একটি ফোন আসে। মোবাইলের অপর প্রান্তে থাকা লোকটি জানিয়ে দেন, অনল সরকার ফাঁসিতে আত্নহত্যা করেছেন। কিন্তু অনল মৃত্যুর আগের দিন রাতেও বাড়ির লোকজনের সঙ্গে কথাবার্তা বলেছেন। তখন তার কথাবার্তাতে কোনো রকম হতাশাগ্রস্থ মনে হয়নি। মৃত অনল সরকারের পিতা হীরালাল সরকারের অভিযোগ, তার ছেলে অনল সরকার ফাঁসিতে আত্নহত্যা করেনি। তাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।
অনলের মৃতদেহ বাড়িতে আসার খবর পেয়ে ছুটে যান রাজ্য বিধানসভার মুখ্য সচেতক কল্যাণী রায়। তিনি অনলের বাবার অভিযোগের বিষয়টি রাজ্য সরকারের কাছে তুলে ধরবেন বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.