ডেস্ক রিপোর্টার,১লা মে।।
রাজ্যের ককবরক ভাষাকে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ সেকেন্ডারি এডুকেশনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এটা অবশ্যই রাজ্যের জন্য গর্বের।এখন থেকে রাজ্যের ককবরক ভাষাভাষীর ছাত্র-ছাত্রীরা সিবিএসই’র সমস্ত পরীক্ষায় নিজেদের ভাষায় পরীক্ষা দিতে পারবে।২০২৩-র বিধানসভা ভোটের আগে জনজাতিদের নিয়ে প্রদ্যুত কিশোরের আন্দোলনকে অনেকটা ব্রেক গিয়ার দিতে পারবে কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্ত।

কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তের পেছনে মূল কারিগর ছিলেন রাজ্যের পূর্ব আসনের সাংসদ রেবতী ত্রিপুরা।ককবরক ভাষাকে সিবিএসই-তে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য গত বছরের ৩রা মার্চ সংসদে রাজ্যের পূর্ব আসনের সাংসদ রেবতী ত্রিপুরা দাবি জানিয়েছিলেন। এরপর বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশে কাজ শুরু করে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। এবং শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের সাংসদ রেবতী ত্রিপুরার দাবি মেনে ককবরক ভাষাকে সিবিএসই-তে অন্তর্ভুক্ত করে।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই ঐতিহাসিক
সিদ্ধান্তের জন্য সাংসদ রেবতী ত্রিপুরা ধন্যবাদ জানিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানকে। সাংসদ রেবতী ত্রিপুরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই সংক্রান্ত পোস্ট দিয়েছেন। তিনি বলেন, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের ফলে লাভবান হবে রাজ্যের জনজাতি ছাত্র-ছাত্রীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.