ডেস্ক রিপোর্টার,৪মে।।
“সাবধান! যারা দেওয়ালকে কলঙ্কিত
করছ! তোমাদের পেছনে
এবার গুণ্ডা লেলিয়ে দেব ।”
২০১৮-র বিধানসভা নির্বাচনের আগে লালদুর্গ খোয়াইয়ে কবি বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের “দেওয়ালের লেখা” কবিতার এই পংক্তির পদধ্বনি শোনা যেতো হার্মাদ বাহিনীর কণ্ঠে।
এখন দিন বদল হয়েছে। ঘটেছে সিংহাসনের হাত বদল। লালদুর্গ খোয়াইয়ে এখন লাল ফোর্সের অস্তিত্ব বিপন্ন। ১৮-র বিধানসভা নির্বাচনে লালদুর্গ ধরে রেখেছিলো বামেরা,কিন্তু এখন তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়েছে। সাধারণ মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে বামেদের। বলছে খোয়াইয়ের আমজনতা।
বামেদের লালদুর্গে এখন মানুষ চাইছে পদ্মের সমাহার। তাই খোয়াইয়ে গেরুয়া শিবিরের একনিষ্ঠ সেনানী অমিত রক্ষিত নিজ হাতেই পদ্ম দিয়ে সাজাচ্ছেন। কারণ এখন হার্মাদ বাহিনীর সেই হুঙ্কার “এবার গুন্ডা লেলিয়ে দেব” শোনা যায় না। পদ্মের আভায় লালদুর্গের বুদ বুদ দুর্গন্ধ যেন উধাও। ভয়হীন ভাবেই মুক্ত মনে দলের যুব ব্রিগেডকে নিয়ে সংস্কৃতির শহরকে পদ্মময় করে তুলছেন রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি অমিত রক্ষিত।
দুয়ারেই কড়া নাড়ছে বিধানসভা নির্বাচন। তাই নির্বাচনের আগে খোয়াই জুড়ে পদ্মের ম-ম গন্ধ ছড়িয়ে দিতে অমিত নিজেই হাতে তুলে নিলেন রং-তুলি। একের পর এক দেওয়ালে শুরু করেছেন লিখন। ফুটিয়ে তুলেছেন ভোটের শতরঞ্জে পদ্মের গরিমা। এবং অতীতের লালদুর্গ খোয়াইকে করে তুলেছেন গেরুয়ার দুর্জয় ঘাঁটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.