ডেস্ক রিপোর্টার, ৭সেপ্টেম্বর।।
         রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের রাজনৈতিক পুনর্বাসন নিয়ে চর্চা চলছে দীর্ঘ দিন ধরেই। রাজনৈতিক মহলে তা নিয়ে নানান গুঞ্জন। মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে অপসারণের পর বিপ্লব কুমার দেবকে প্রদেশ বিজেপির সভাপতি করা হবে বলে রাজনৈতিক মহলে আলোচনা শুরু হয়েছিল। বিপ্লব কুমার দেব নিজেও বলেছিলেন,দলের সংগঠনকে শক্তিশালী করতেই তাকে মূখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরানো হয়েছে।তিনি মূলত দলের সংগঠনের কাজ করবেন। তখন ধারনা করা হয়েছিল,বিপ্লব দেবই হচ্ছেন দলের পরবর্তী রাজ্য সভাপতি। কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব সেই পথে হাঁটে নি। তারা বিপ্লব দেবকে দ্বিতীয় বারের মত সভাপতির চেয়ারে বসায় নি। বরং চমক সৃষ্টি করে রাজীব ভট্টাচার্য্যকে রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব দেয়। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠছে তাহলে কি হবে বিপ্লব কুমার দেবের পরবর্তী জার্নি?
                বিজেপি সূত্রের খবর, বিপ্লব কুমার দেবকে পাঠানো হতে পারে রাজ্য সভায়। আগামী ২২সেপ্টেম্বর রাজ্য সভার নির্বাচন।এই মুহূর্তে বিপ্লব কুমার দেব অবস্থান করছেন দিল্লিতে। গেরুয়া শিবিরের দাবি, বিপ্লব কুমার দেবকে রাজ্য সভায়ও পাঠানো হবে না।বিপ্লব দেবকে করা হতে পারে “নেডার” ভাইস চেয়ারম্যান। অর্থাৎ বিপ্লব কুমার দেবকে উত্তর – পূর্বাঞ্চলের সংগঠনের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। “নেডার” চেয়ারম্যান হলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। বিপ্লব দেবকে নেডার চেয়ারম্যান করলে তিনি রাজ্যের সংগঠনও দেখতে পারবেন। সামনেই বিধানসভা নির্বাচন।২৪- এ লোকসভা ভোট।এই দুইটি নির্বাচনে ভালো ফল করতে হলে বিজেপির সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। এক্ষেত্রে বিপ্লব কুমার দেব বড় ভূমিকা নিতে পারবেন।এমনটাই মনে করছেন রাজনীতিকরা।
                বিপ্লব অনুগামীদের বক্তব্য,তিনি নিজেও রাজ্য সভায় যেতে চাইছেন না।তিনি রাজ্যে থেকে সংগঠনের কাজ করতেন চান।এই কারণেই বিপ্লব কুমার দেব বর্তমানে দলের নিজের সরকারী আবাসে বসে সংগঠনের হাল হকিকতের খোঁজ খবর করছেন। বিপ্লবকে নেডার দায়িত্বে দিলে তিনি রাজ্যর সংগঠনের কাজও ভালো ভাবে করতে পারবেন বলে মনে করছে  বিপ্লব অনুগামীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.