ডেস্ক রিপোর্টার,৭ফেব্রুয়ারি।।
অবশেষে আবাসন হলো দীর্ঘদিনের টানপুরেন। সমস্ত জল্পনা-কল্পনার আবাসন ঘটিয়ে বিধায়ক “পদ” ও বিজেপি থেকে পদত্যাগ করেছেন পদ্ম শিবিরের দুই বিক্ষুব্ধ বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন ও আশীষ সাহা। সোমবার সকালে দুই বিধায়ক রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ রতন চক্রবর্তীর কাছে পদত্যাগ পত্র জমা করেন।এবং দূত মাধ্যমে প্রদেশ বিজেপি’র সভাপতি ডা: মানিক সাহার কাছে পাঠিয়ে দেন বিজেপি’র প্রাথমিক সদস্য পদ পদত্যাগের চিঠি। একথা জানিয়েছেন সুদীপ-আশীষ নিজেই।
বিধানসভার অধ্যক্ষ রতন চক্রবর্তীর কাছে পদত্যাগ পত্র জমা করে বিধায়ক আশীষ সাহা জানিয়েছেন, তারা এদিনই দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন।আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তাদের পরবর্তী রাজনৈতিক গন্তব্যের ঘোষণা করবেন।
বিজেপি’র সংস্কারপন্থী বিধায়ক দলের নেতা সুদীপ রায় বর্মন পদত্যাগ পত্র জমা করে বলেন, “তিনি দীর্ঘদিন ধরে বুঝানোর চেষ্টা করেছেন।কিন্তু দল বুঝে নি।এখন মানুষের কথা অনুযায়ী পদত্যাগ পত্র জমা করেছেন।আগেও মানুষের কথা অনুযায়ী দলত্যাগ করেছিলেন।”
সুদীপের বক্তব্য, তিনি বরাবর মানুষের পাশে ছিলেন।কাজ করেছেন মানুষের জন্য। মানুষের স্বার্থেই নিয়েছেন পদত্যাগের সিদ্ধান্ত।বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন বলেন, পদত্যাগ পত্র জমা করে নিজেকে হালকা বলে মনে করছেন।এখন তিনি খোলা মনে কাজ করতে পারবেন মানুষের জন্য।দুই বিধায়ক সুদীপ-আশীষ তাদের পরবর্তী রাজনৈতিক গন্তব্য সম্পর্কে মুখ খুললেন নি। তার জানার জন্য আরেকটু সময় অপেক্ষা করতে হবে বলেই জানিয়েছেন তারা।
রাজনীতিকদের বক্তব্য, সুদীপ-আশীষ তাদের পরবর্তী রাজনৈতিক গন্তব্য সম্পর্কে কিছু না বললেও, এটা প্রায় স্পস্ট হয়ে গেছে উভয়েই যোগ দেবেন কংগ্রেসে।কারণ এই জন্যই তারা উড়ে গেছেন দিল্লিতে।আগামী ১০ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী তাদের হাতে কংগ্রেসের পতাকা তুলে দিয়ে দলে বরণ করে নেবেন।এরপরই তারা ফিরে আসবেন রাজ্যে।এবং কংগ্রেসের হয়ে শুরু করবেন কাজ।
কংগ্রেস সূত্রের দাবি, প্রাথমিক ভাবে সুদীপ রায় বর্মন ও আশীষ সাহা কংগ্রেসে যোগ দিলেও পরবর্তীতে আরো কয়েকজন বিধায়ক যোগ দেবেন শতাব্দীর প্রাচীন এই রাজনৈতিক দলে। খবর অনুযায়ী, সোমবার সুদীপ-আশীষের সঙ্গে রাজ্য ত্যাগ করেছেন শাসক দলের আরো দুই বিধায়ক বুর্বু মোহন ত্রিপুরা ও দিবাচন্দ্র রাংখল ও অতুল দেববর্মা তবে তারা এখনই কংগ্রেসে যোগ দেবেন না। আরো কিছুটা দিন অপেক্ষার পর তারা আনুষ্ঠানিক ভাবে শামিল হবেন কংগ্রেসে।
রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ রতন চক্রবর্তী জানিয়েছেন, তিনি দুই বিধায়কের পদত্যাগ পত্র জমা রেখেছেন।পরবর্তী সময়ে তাদের জমা করা পদত্যাগ পত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিধানসভার পক্ষ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হবে। সুদীপ-আশীষের দল ও বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করায় নিঃসন্দেহে কিছুটা হলেও চাপ বাড়বে শাসক শিবিরের।বলছেন রাজনীতিকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.