ডেস্ক রিপোর্টার, আগরতলা।।
মজলিশপুর বিধানসভা কেন্দ্রে মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে রাজনৈতিক সংঘর্ষ। যেকোনো সময় সম্মুখ সমরে চলে আসতে পারে কংগ্রেস-বিজেপি। এমন পরিস্থিতির আভাস দিচ্ছে খোদ মহকুমা পুলিশ প্রশাসন। এই কারণেই পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা জনিত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে দাবি অরক্ষা দপ্তরের।
সম্প্রতি কেশব সরকার এবং তার অনুগামীরা কংগ্রেসে যোগ দেয় আনুষ্ঠানিক ভাবে। কেশব সরকার এক সময় জিরানিয়া রেল ইয়ার্ড’র সিন্ডিকেট চক্রের সঙ্গে জড়িত ছিলো বলে অভিযোগ। তার বিরুদ্ধে এক সময় নাসা প্রয়োগ করা হয়েছিলো।যদিও কেশব পরবর্তী সময়ে আদালত থেকে মুক্তি পায়।এই মামলায় তদন্তকারী পুলিশকে তিরষ্কৃত হতে হয়েছিলো।
কেশব সরকারের অভিযোগ, মঙ্গলবার তার বাড়িতে হামলা করতে আসে বিজেপি’র দুষ্কৃতীরা। যদিও তারা কেশবের বাড়িতে প্রবেশ করতে পারেনি।কেশব সরকার এই মর্মে জিরানিয়া থানায় মামলা দায়ের করে। জিরানিয়া সূত্রের খবর, আগামী কিছু দিনের মধ্যে জিরানিয়া থেকে আরো বেশ কয়েকজন বিজেপি নেতৃত্ব দল ছাড়তে পারেন।এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই পাল্টা ক্যাম্পেনিং-এ নামে বিজেপি। এই ঘটনা কেন্দ্র করেই তপ্ত হয়ে উঠে গোটা এলাকা।
পুলিশ সূত্রের দাবি, জিরানিয়াতে বিজেপি-কংগ্রেসের দলীয় কর্মী-সমর্থকরা একে অপরের বিরুদ্ধে তাক করে আছে।যে কোনো সময় বিগড়ে যেতে পারে পরিস্থিতি।এক সময় জিরানিয়া থানা ছিলো রাজ্যের স্পস্টকাতর থানা গুলোর অন্যতম। হামেশায় জিরানিয়াতে ঘটতো রাজনৈতিক সন্ত্রাস।তখন সম্মুখ-সমরে ছিলো কংগ্রেস-সিপিআইএম।এখন পরিবর্তিত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে চিত্র অনেকটা পাল্টেছে। ঘটছে রাজনীতির মেরুকরণ। কেশব সরকার সহ কয়েকজন কংগ্রেসে যোগ দিতেই টগবগ হয়ে উঠে পরিস্থিতি। এবং বাড়ছে রাজনৈতিক সন্ত্রাসের সম্ভাবনাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published.