উদয়পুর ডেস্ক, ৮সেপ্টেম্বর।।
শাসক-বিরোধী সংঘর্ষে রক্তাক্ত উদয়পুর।দুই পক্ষের সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত। বিজেপি-সিপিআইএম’র সংঘর্ষের রেশ প্রচুর ভাঙচুর,অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।মন্দির নগরীর অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাস ও লাঠি চার্জ করতে হয়।শেষ পর্যন্ত মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী। বিজেপির অভিযোগ, সিপিআইএম’র আক্রমণে শাসক দলের এক সমর্থক গুরুতর জখম হয়েছেন।তার মাথায় আঘাত লেগেছে।তাকে রাজপথে ফেলে লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়েছে।
এদিন কাজের দাবিতে উদয়পুরে ছিলো ডিওয়াইএফআই মিছিল।পুলিশের দাবি, প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাম যুব সংগঠনকে মিছিলের অনুমতি দেওয়া হয়নি। তারপরও তারা মিছিলের উদ্যোগ নেয়।এই মিছিল কেন্দ্র করেই চড়তে থাকে উত্তেজনার পারদ। বিজেপি’র পুলিশ মিছিলের অনুমতি না দেওয়াতে ডিওয়াইএফআই’র কর্মী-সমর্থকরা আচমকা শহরে ভাঙচুর শুরু করে।এসময় বিজেপি’র কর্মী-সমর্থকদের দেখে দেখে মারধর শুরু করে। পুলিশ সামনে থাকলেও বাম যুব সংগঠনের কর্মী-সমর্থকদের আস্ফালন থামাতে ব্যর্থ হয়। বিজেপির এক সমর্থকদের রাজপথে ফেলে লাঠি দিয়ে আঘাত করে।ঘটনাস্থলে রক্তাক্ত অবস্থায় বিজেপির এই কর্মী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনী নিয়ে যায় হাসপাতালে।এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিজেপির লোকজন বেরিয়ে আসে রাজপথে।শাসক-বিরোধী দুই পক্ষের মধ্যে ধাপে ধাপে শুরু হয় সংঘর্ষ। চলে ইট-বৃষ্টি।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ব্যতিব্যস্ত হয়ে যায় পুলিশ। শেষ পর্যন্ত কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ সহ মৃদু লাঠিচার্জ করে। এরপরই ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি।তবে গোটা উদয়পুরে বিরাজ করছে থমথমে পরিবেশ।যে কোনো সময় ফের শাসক-বিরোধী উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধতে পারে বলে আশঙ্কা করছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.