ডেস্ক রিপোর্টার,৯জানুয়ারি।।
চলতি বছর অনুষ্ঠিত হবে রাজ্য সভার নির্বাচন। রাজ্য সভার নির্বাচনের জের ধরে কিছু পরিবর্তন আসতে পারে রাজ্যের শাসক দল বিজেপি’র অন্দর মহলে।এমন খবর ঘুরপাক খাচ্ছে বিজেপি’র রাজ্য দপ্তরে।
এবছরই ফের পরিবর্তন হতে পারে রাজ্য বিজেপি’র সভাপতি। বর্তমান সভাপতি ডা:মানিক সাহাকে দল রাজ্য সভায় পাঠিয়ে দিতে পারে।তার পরিবর্তে সভাপতির চেয়ারে বসতে পারেন কিশোর বর্মন।তিনি বর্তমানে দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। বিজেপি’র কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে এমনই গুঞ্জন।
রাজনীতিকরা বলছেন,যদি মানিক সাহাকে রাজ্য সভায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়,তাহলে ২৩-র বিধানসভা ভোটে বিপ্লব কুমার দেবের সঙ্গে জুটি বাঁধবেন কিশোর বর্মন।বিপ্লব-কিশোর জুটির নেতৃত্বেই নির্বাচন লড়বে বিজেপি। বাংলার বিধানসভা ভোটে কিশোর বর্মন নিজেকে একজন সংগঠক হিসাবে প্রমান করতে পেরেছেন।তার সাফল্যের জন্য বিজেপি’র হাই কমান্ড কিশোরকে পাঠিয়ে দিয়েছে রাজ্যে। কিশোর বর্মন প্রথম দিকে রাজ্যে আসার পর তার দিকে ছিলো মিডিয়ার হাই-লাইট।কিন্তু এখন দল কিশোর বর্মনকে খুব বেশি সামনে আনে নি। তবে দলের সাংগঠনিক কাজকর্ম দেখাশুনা করছেন তিনি।হয়তো বা মোক্ষম সময়েই দল কিশোর বর্মনকে নিয়ে আসবে একেবারেই সামনের টেবিলে।তার জন্য অবশ্যই বর্তমান সভাপতি ডা: মানিক সাহাকে সম্মানীয় স্থানে বসাতে হবে।তারই নাকি পরিকল্পনা চলছে বিজেপি’র শিবিরে।
শাসক দলের অপর একটি সূত্রের দাবি,গোটা ছবি উল্টে যেতে পারে।কিশোর বর্মনকে পাঠানো হতে পারে রাজ্য সভায়।কেননা বিজেপি’র সর্ব ভারতীয় নেতৃত্ব বর্তমান সভাপতি ডা:মানিক সাহাকে রাজ্য মন্ত্রী সভায় দেখতে চাইছেন। এই জন্যই ডা:মানিক সাহাকে ২৩-র বিধানসভা ভোটে ৮-টাউন বড়দোয়ালী বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করতে চাইছে দল।তার কিছুটা আভাস পাওয়া গেছে সদ্য সমাপ্ত নিগম ভোটে।বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্ভুক্ত নিগমের ওয়ার্ড গুলিতে ভোট প্রচারে বেরিয়েছিলেন ডা: মানিক সাহা। তিনি খোঁজ খবর নিয়েছিলেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মানুষের সমস্যার নানান কথা।দিয়েছিলেন সমাধান করার প্রতিশ্রুতিও। তা থেকে স্পস্ট দলের একটা অংশ চাইছে বিজেপি’র পরবর্তী মন্ত্রিসভায় ডা:মানিক সাহাকে দেখতে।তবে অপর একটি মহল চাইছে মানিক সাহাকে রাজ্য সভায় পাঠিয়ে দিয়ে দলের ব্যটন তুলে দিতে কিশোর বর্মনের হাতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.