ডেস্ক রিপোর্টার,৯ফেব্রুয়ারি।।
সীমান্তরক্ষী বাহিনী ও পাচারকারীদের “ফ্রী স্টাইলে” ফের তপ্ত হয়ে উঠেছে বক্সনগরের সীমান্ত গ্রাম রহিমপুর। বিএসএফের রাবার বুলেটের আঘাতে গুরুতর জখম হয় দুই মাদক কারবারী। তারা হলো
সোহাগ মিয়া ও ইকবাল হোসেন। তারা রহিমপুর পশ্চিমপাড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় বাসিন্দা। বুধবার সকাল ছয়টা নাগাদ এই ঘটনা।
বিএসএফ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এদিন সকালে ১৬৪ নম্বর সীমান্ত গেটের পাশে থাকা কাঁটাতারের উপর দিয়ে মাদক দ্রব্যের প্যাকেট ওপারে ছুঁড়ে মারে কারবারীরা। কিন্তু মাদক দ্রব্যের প্যাকেট কাঁটাতারে আটকে যায়। কর্তব্যরত বিএসএফ জওয়ান এই ঘটনা দেখে দৌঁড়ে আসেন ঘটনাস্থলে।তিনি পাচারকারীদের তাতে বাধা দেয়।এই নিয়ে জওয়ানের সঙ্গে পাচারকারীদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পাচারকারীরা বিএসএফ জওয়ানের হামলে পড়ে।পরিস্থিতি বেগতিক দেখে বিএসএফ জওয়ান তাঁর রাইফেল থেকে রাবার বুলেট ছুঁড়তে থাকে। বুলেটের আঘাতে ঘটনাস্থলেই ছিটকে পড়ে দুই পাচারকারী সোহাগ মিয়া ও ইকবাল হোসেন। সঙ্গে সঙ্গেই অন্যান্য পাচারকারীরা বুলেট বিদ্ধ দুইজনকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় বক্সনগর সামাজিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়াতে দুই পাচারকারীকে চিকিৎসকরা রেফার করে দেয় জিবি হাসপাতালে।
সম্প্রতি রহিমপুর এলাকায় এক বিএসএফ জওয়ানের হাতিয়ার ছিনিয়ে নিয়ে গিয়েছিলো পাচারকারীরা।দীর্ঘ কয়েক ঘণ্টা খোঁজাখুঁজি করার পর এলাকার মানুষের সহযোগিতায় উদ্ধার করা হয়েছিলো হাতিয়ার।এই ঘটনার দুই মাস আগেও একই সীমান্ত গেট দিয়ে পাচারের সময়ে বিএসএফের গুলিতে জখম হয়েছিলো সাইফুল ইসলাম নামে এক যুবক। স্থানীয় মানুষ বরাবর পুলিশ ও বিএসএফের ভূমিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছে। কারণ পাচারকারীদের সঙ্গে একাংশ পুলিশ-বিএসএফ জড়িত থাকার কারণেই সংশ্লিষ্ট সীমান্ত এলাকায় নিয়মিত ভাবেই চলছে পাচার বাণিজ্য।তবে পাচার রুখতে বিএসএফের পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় বাড়ানো হয়েছে অতিরিক্ত নজরদারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.