ডেস্ক রিপোর্টার, ৯ নভেম্বর।।
রাজ্যে লগ্নি টানতে অভিনব উদ্যোগ রাজ্য সরকারের।সর্বোপরি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের। রাজ্য সরকারের উদ্যোগে মুম্বাইতে “ডেস্টিনেশ ত্রিপুরা”—নামে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলন শুরু হবে আগামী ১২নভেম্বর।রাজ্য শিল্প বাণিজ্য দপ্তর থেকে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
শিল্প বাণিজ্য দপ্তরের খবর অনুযায়ী, মুম্বাইয়ের সেন্ট্রাম হলে,ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে হবে ডেস্টিনেশ ত্রিপুরা”—নামে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলন।এদিন সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে এই বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলন।রাজ্য শিল্প-বাণিজ্য দপ্তরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ডেস্টিনেশ ত্রিপুরা”—নামে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলনে হবে রোড-শো।রাজ্যের ছয়টি বিষয় নিয়ে হবে রোড-শো।তারমধ্যে থাকবে রাবার শিল্প,ফুড প্রসেসিং,চা শিল্প, বাঁশ শিল্প তাঁত শিল্প আগর ও পর্যটন। এই সম্মেলনে শিল্পপতিদের রাজ্যে বিনিয়োগের প্রস্তাব দেওয়া হবে।এবং সংশ্লিষ্ট শিল্প গুলির উপর রাজ্যে কারখানা করার প্রস্তাবও দেওয়া হবে।সব মিলিয়ে “ডেস্টিনেশ ত্রিপুরা”—নামে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলনে রাজ্যে কিভাবে বিনিয়োগকারীদের টানা যায় তার দিকে লক্ষ্য থাকবে রাজ্যের।
গোটা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মধ্যে ত্রিপুরা হচ্ছে শিল্পের সম্ভাবনাময় সিংহ দুয়ার।ত্রিপুরার শিল্পের এই সম্ভাবনার বিষয়টি তুলে ধরা হবে ডেস্টিনেশ ত্রিপুরা—-নামক বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলনে।এই সংক্রান্ত সম্মেলন থেকে লগ্নিকারকদের টেনে আনতে পারলে আক্ষরিক অর্থে লাভবান হবে রাজ্য।বলছেন শিল্পের সঙ্গে জড়িত লোকজন।
প্রসঙ্গত, আগামী ১৯ নভেম্বর দেশের রাজধানী দিল্লিতেও একই ভাবে অনুষ্ঠিত হবে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলন। মানের বাঁশ, রবার এবং আগরের জন্য খ্যাতি রয়েছে পার্বত্য ত্রিপুরার।সঙ্গে চা শিল্পেও নাম কুড়িয়েছে রাজ্য।পর্যটনের জন্য খোলা রয়েছে সম্ভাবনার বৃহৎ দরজা।এই সমস্ত বিষয়গুলি নিয়ে শিল্প গড়তে চাইছে রাজ্য সরকার।সঙ্গে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, কৃষি, উদ্যানপালন এবং তাঁত শিল্পের উজ্জ্বল সম্ভাবনা এই রাজ্যে।তাই এই সমস্ত ক্ষেত্রে শিল্পপতিদের বিনিয়োগের আহবান জানানো হবে রাজ্যে।তারজন্য বহিঃ রাজ্যে বিনিয়োগ শীর্ষক সম্মেলনের আয়োজন করার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের বিনিয়োগকারীদের আগমন ঘটলে বাড়বে কর্মসংস্থা।কমবে বেকারত্ব। আরো সুঠাম হবে রাজ্যের অর্থনীতি।সব মিলিয়ে বিকাশের আলো জ্বল জ্বল করবে গোটা রাজ্যে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.