ডেস্ক রিপোর্টার,১১জানুয়ারি।।
রাজ্য জুড়ে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আস্ফালন। হুঁ হুঁ করে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ।গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫৭৯জন।তৃতীয় ঢেউয়ে এটাই সংক্রমণের সর্বোচ্চ “ফিগার”।এই তথ্য নিশ্চিত করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর। করোনার তড়িৎ গতির সংক্রমণের হার পরিস্থিতি লকডাউনের দিকে ধাবিত হচ্ছে। এই গতিতে সংক্রমণ বাড়তে থাকলে প্রশাসনের কাছে লকডাউন বিনা বিকল্প কিছু থাকবে না। এমনটাই বলছে বিশেষজ্ঞরা।তবে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে লকডাউন সম্পর্কে ইঙ্গিত আপাতত দেওয়া হয়নি।
রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘন্টায় লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে সংক্রমণ।সংক্রমণের শতকরা হার ৭.০৯ শতাংশ। রবিবার সংক্রামনের শতকরা হার ছিলো ৪.৮৩শতাংশ।এবং আক্রান্ত হয়েছিলো ১৭৬ জন।এই পরিসংখ্যান থেকে স্পস্ট সংক্রমণের বেপরোয়া “গতি”। শেষ ২৪ঘন্টায় রাজ্যে পরীক্ষিত নমুনার সংখ্যা ছিলো ৮,১৬৬।তার মধ্যে আরটিপিসিআর টেস্ট হয়েছে ১০৯৫টি।এবং এন্টিজেন টেস্ট হয়েছে ৭০৭১টি। আরটিপিসিআর টেস্ট থেকে ৪২জন পজিটিভ রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে।এবং এন্টিজেন টেস্ট থেকে পাওয়া গিয়েছে ৫৩৭জন করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান।এই সময়ের মধ্যে সুস্থতার সংখ্যা শূন্যের কোটায়।তবে স্বস্তির বিষয় নেই মৃত্যুর ঘটনা।
এদিনের জেলা ভিত্তিক সংক্রমনের তথ্য অনুযায়ী, তালিকার প্রথম স্থানে রয়েছে পশ্চিম জেলা।সংক্রমণের সংখ্যা ৩৯৩।দ্বিতীয় স্থানে দক্ষিণ জেলা।সংক্রমিত হয়েছে ৪৪জন।তৃতীয় স্থানে গোমতী।সংক্রমণের সংখ্যা ৩১। ৩০জন সংক্রমিত রোগীকে নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে সিপাহিজলা। ২৮জন সংক্রমিত উনকোটি জেলায়।আছে পঞ্চম স্থানে। ষষ্ঠ স্থানে ধলাই।মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২১। তারপরই উত্তর ও খোয়াই জেলা। সংক্রমণের সংখ্যা যথাক্রমে ১৯ ও ১৩ ।স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য বলছে, নতুন বছরের প্রথম ১১দিনে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৪৬জন। অর্থাৎ প্রতিদিন গড়ে আক্রান্ত হয়েছে ১৩১জনের অধিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.