ডেস্ক রিপোর্টার,১১আগস্ট:
গত ১আগস্ট “জনতার মশাল” ব্যাংক ম্যানেজার বোধিসত্ত্ব দাস হত্যাকান্ড নিয়ে তথ্য সমৃদ্ধ এক্সক্লুসিভ খবর সম্প্রচার করেছিল।
খবরের উপপাদ্য ছিলো বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলা কবর দিতে আইন ও বিচার ব্যবস্থার দুই কুশীলবদের গোপন বৈঠক। বৈঠকের স্থান ছিলো মেলাঘরের নীর মহলের পর্যটন নিবাস “সাগর মহল।”

বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলাকে ক্লোজ চাপ্টার করতে শুধু কি সাগর মহলেই বৈঠক হয়েছিলো?
” না” ।


জনতার মাশালের তদন্তের ঘড়ি বলছে আইন ও বিচার ব্যবস্থার দুই প্রথম সারির কুশীলব প্রথম গোপন বৈঠক করেছিলেন সাগর মহলে।
“কিন্তু,”
দ্বিতীয় বৈঠকেরও আয়োজন করেছিলেন বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলাকে ক্লোজ চাপ্টারের পরিণত করতে উদ্যোগী হওয়া রাজ্যের আইন ও বিচার ব্যবস্থার প্রথম সারির দুই রাঘব বোয়াল।

** কোথায় হয়েছিলো দ্বিতীয় বৈঠক? সোজাসাপ্টা উত্তর দ্বিতীয় বৈঠকের গন্তব্যস্থল ছিলো রাজ্যের আরেক পর্যটন কেন্দ্রে। গোমতী জেলার পর্যটন কেন্দ্র “ছবিমুড়া”তে।
প্রকৃতির মনোরম সৌন্দর্য্যে ভরপুর ছবিমুড়ার নির্জন স্থানে বসে বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলাকে কবরে পুঁতে দেওয়ার ব্লু প্রিন্ট তৈরি করেছেন আইন ও বিচার ব্যবস্থার দুই রাঘব বোয়াল।
মেলাঘরের সাগর মহলে প্রথম দফায় বৈঠকে কোনো সমাধান সূত্র বের না হলেও। ছবিমুড়া দ্বিতীয় দফায় বৈঠকে আলোচনা কিছুটা ফল প্রসু হয়েছে। পাওয়া গেছে এমনই ইঙ্গিত। বাস্তব অর্থে টাকা যে বরাবর কথা বলে,তা আবারও প্রমাণিত।
বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলায় রাজধানীর ডাক সাইটের স্বর্ণ ব্যবসায়ী কালিকা জুয়েলারির তনয় সুমিত চৌধুরী ও আদরের ভাগ্নে সুমিত বণিক জড়িত।সঙ্গে পুলিশ অফিসার সুকান্ত বিশ্বাস ও দাগি অপরাধী ওমর শরীফ। তাদের বাঁচাতে আদা-জল খেয়ে মাঠে নেমেছে কালিকা জুয়েলারির মালিক শিশির কুমার চৌধুরী।যেন,তেন প্রকারেন ছেলে ও ভাগ্নেকে বাঁচাতে চাইছেন।এটা স্বাভাবিক।তাই নিজের অর্থের গোলা থেকে মোটা মোটা বান্ডিল ছড়িয়ে দিতেও প্রস্তুত তিনি।তাই তো, আইন ও বিচার ব্যবস্থার রাঘব বোয়ালদের চাহিদার অধিক টাকা ছিটিয়ে দিতে প্রস্তুত কালিকা জুয়েলারি কর্ণধার।এমন গুঞ্জন শহরের স্বর্ণ ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে পুলিশ ও আইনজীবী মহলে।
তবে ভুললে চলবে না।এই সংক্রান্ত আরো বহু অজানা তথ্য তুলে ধরবে “জনতার মশাল।জনতার মশাল চায় বোধিসত্ত্ব হত্যা মামলায় অভিযুক্তদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হোক।সমাজের স্বার্থে,মানুষের স্বার্থে গোটা ঘটনার উপর প্রতি মুহূর্তে নজর রেখে চলছে এই রাজ্যের মানুষের একমাত্র ভরসার সংবাদ মাধ্যম জনতার মশাল।
দেশ ও রাজ্যের বিচার ব্যবস্থার প্রতি পূর্ণাঙ্গ আস্থা রয়েছে জনতার মাশালের। শুধুমাত্র দুয়েকজন কুশীলবদের স্বার্থের জন্য কখনো কুলষিত হবে না পবিত্র আইন ও বিচার ব্যবস্থা।
তাই আবারও বলছি, “সাধু সাবধান”।

Leave a Reply

Your email address will not be published.