তেলিয়ামুড়া ডেস্ক, ১২সেপ্টেম্বর।।
             হাতেগোনা আর কয়েকটা দিন পরেই দেব শিল্পী বিশ্বকর্মা দেবের পূজা অনুষ্ঠিত হবে । গোটা দেশজুড়ে পুজিত হবে বিশ্বকর্মা । এর সুবাদে গোটা রাজ্যের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে তেলিয়ামুড়া মহকুমা জুড়েও মানুষজন বিশ্বকর্মা পুজোয় মাতোয়ারা হয়ে  উঠবে । প্রতিটি ঘরে ঘরে এবং কারিগরি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান গুলিতে পুজিত হবেন দেব শিল্পী  । তাই মূর্তি পাড়ার মৃৎশিল্পীরা কতটা ব্যস্ততার মধ্যে দিন গুজরান করতে হচ্ছে সেটাই দেখার। তেলিয়ামুড়ার বিভিন্ন মূর্তি পাড়াগুলিতে গিয়ে প্রত্যক্ষ করা গেল মৃতশিল্পীরা ব্যস্ত প্রতিমা তৈরিতে । বিগত দুইটি বছর করোনা আবহের  কারণে দেব শিল্পীর পুজোর সংখ্যাটা যেমন কম ছিল,তেমনি আনন্দের মুহূর্ত গুলি প্রত্যক্ষ করা যায়নি । কিন্তু এবছর একটু অন্যরকম । করোনার দাপাদাপি না থাকার কারণে দেব শিল্পীর পুজোর সংখ্যাটাও বেড়েছে ।  স্বাভাবিকভাবেই মূর্তিপাড়ার মৃৎশিল্পীরা বেশ আনন্দিত এবং উৎসাহিত প্রতিমা তৈরিতে । কারণ এবছর দেদার ভাবে প্রতিমা তৈরীর অর্ডার ও পেয়েছেন স্থানীয় মৃৎশিল্পীরা।  স্বাভাবিকভাবে আয় উপার্জনের পরিমাণ বাড়বে। প্রতিমা তৈরিতে মাটি সহ বিভিন্ন সামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধি পেলেও প্রতিমার মূল্য তেমনভাবে বৃদ্ধি পাবে না । তেলিয়ামুড়া এলাকার বিশিষ্ট এক মৃত শিল্পী  নরেশ পাল কথা প্রসঙ্গে জানান, বিগত দুই বছরের তুলনায় এ বছরে প্রতিমার চাহিদাও বেশি । তিনি এটাও জানালেন বিগত দুই বছর করোনার দাপাদাপিতে এলাকার মৃৎ শিল্পীরা প্রচন্ডভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল । এবছর করোনার দাপাদাপি না থাকার কারণে পুজোর সংখ্যাটা বেড়ে যাওয়ায় স্থানীয় মৃতশিল্পীদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে । তবে সে যাই হউক না কেন, আগামী কয়েকটা দিন পরেই দেবশিল্পীর আরাধনা গোটা রাজ্যের সাথে তেলিয়ামুড়াতেও আমজনতারও মেতে উঠবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.