ডেস্ক রিপোর্টার,১৩মার্চ।।
শাসক দল বিজেপি’র সংসারে ফের কি অশান্তির ছায়া! দলের সঙ্গে কি মতানৈক্য চলছে কারামন্ত্রী রাম প্রসাদ পালের?বিজেপি’র বর্তমান ঘরোয়া পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করলে এমন আভাসই প্রকট হচ্ছে রাজনৈতিক মহলে।
সম্প্রতি বিজেপি’র বেশ কিছু হোয়াটস এপ্স গ্রুপ থেকে বেরিয়ে গিয়েছেন রাজ্যের কারা-সমবায়মন্ত্রী রাম প্রসাদ পাল। হোয়াটস এপ্স গ্রুপ থেকে মন্ত্রীর “লেফট” হওয়া বিষয় নিয়ে জোর চর্চা চলছে রাজনৈতিক মহলে। তবে এটা অবশ্যই মন্ত্রীর নিজস্ব বিষয়।
শনিবার রাজ্য বিজেপি নতুন ভাবে রাজ্য কমিটির সদস্যদের নামের তালিকা প্রকাশ করে।এই তালিকায় নাম নেই পূর্বতন সহ-সভাপতি রামপ্রসাদ পালের। অর্থাৎ ঘুরিয়ে বললে রাম প্রসাদ পালকে রাখা হয়নি রাজ্য কমিটিতে।
সম্প্রতি রাম প্রসাদ পাল দলের হুইপ জারির পরও শহরে বাইক মিছিল করেন।এই বাইক মিছিলের পর দলের সঙ্গে মন্ত্রীর দুরত্ব বাড়ে। তাছাড়া সুদীপ রায় বর্মন-আশীষ সাহারা কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার পর তাদের নিয়ে করা মন্ত্রী রাম প্রসাদ পালের বক্তব্য ভালো ভাবে নেয় নি রাজ্য বিজেপি।সব মিলিয়ে দল মন্ত্রীর কিছু কাজকর্মে ক্ষুব্ধ। এটা প্রমান হয়েছে রাজ্য কমিটি ঘোষণার মধ্য দিয়ে।ঘোষিত রাজ্য কমিটিতে নাম নেই কারামন্ত্রী রাম প্রসাদ পালের।
রাজনীতিকরা বলছেন, রাজ্য কমিটিতে ঠাঁই হচ্ছে না, এই বিষয়টি বুঝেই পেরেই মন্ত্রীও ক্ষুব্ধ হয়েছেন।স্বাভাবিক ভাবেই মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল দলের বিভিন্ন হোয়াটস এপ্স গ্রুপ থেকে বেরিয়ে যান। মন্ত্রী দলের বিভিন্ন হোয়াটস এপ্স গ্রুপ থেকে বেরিয়ে গিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন দলের এই সিদ্ধান্ত তিনি মেনে নিতে পারেননি।
বিজেপি’র অন্দর মহলের খবর, এক সময় তিনি প্রদেশ বিজেপি’র সভাপতির দৌড়ে ছিলেন।কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বপ্ন সাকার হয়নি।সভাপতি হয়ে যান বিপ্লব কুমার দেব।এরপর সবই ইতিহাস। গত বিধানসভা নির্বাচনে রাম প্রসাদ পালের টিকিট নিয়েও ঝামেলা তৈরি হয়েছিলো।শেষ মুহূর্তে সূর্যমনি নগরে বিজেপি’র প্রার্থী হন তিনি। নির্বাচনের জয়ীও হন।দল ক্ষমতায় আসার পর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রাম প্রসাদ পালের মতানৈক্য ঘটে। তিনি সুদীপ রায় বর্মনদের সঙ্গে বাগি বিধায়কদের তালিকায় চলে গিয়েছিলেন।পরে অবশ্যই সমস্ত কিছু মিটমাট হয়।রাজ্য মন্ত্রিসভায় স্থান পান তিনি। সব কিছু চলছিলো ঠিকঠাক।কিন্তু হঠাৎ ফের ঘটে ছন্দ পতন। কিন্ত কেন? এই ক্ষোভেই কি তিনি বেরিয়ে গেছেন দলের বিভিন্ন হোয়াটস এপ্স গ্রুপ থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.