ডেস্ক রিপোর্টার,১৪ফেব্রুয়ারি।।
সুদীপ-আশীষ বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিতেই দলের খোল-নলচে পরিবর্তনের দাবি জোড়ালো হচ্ছে। দলের প্রদেশ সভাপতি থেকে শুরু করে মহকুমা, ব্লক স্তরের নেতা পরিবর্তনের ইঙ্গিত স্পস্ট হচ্ছে।
প্রদেশ কংগ্রেস সূত্রের খবর, আগামী এপ্রিল মাসের মধ্যে পরিবর্তন হতে পারে প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি। বর্তমান সভাপতি বীরজিৎ সিংহকে দেওয়া হবে অব্যাহতি।তার পরিবর্তে দলের নতুন প্রদেশ সভাপতি হতে পারেন আশীষ কুমার সাহা।
কংগ্রেসের খবর অনুযায়ী, প্রদেশ কংগ্রেসকে সাজানোর জন্য সুদীপ-আশীষের হাতেই ব্যাটন তুলে দেওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাই-কমান্ড। এআইসিসি নেতৃত্ব, সুদীপ রায় বর্মনকেই সভাপতির দায়িত্ব দিতে চেয়েছিলেন।কিন্তু এই মুহূর্তে সুদীপ এই দায়িত্ব নেবেন না।পরিবর্তে তিনি আশীষ কুমার সাহাকে সভাপতি করার প্রস্তাব দিয়েছেন। আশীষকে সভাপতি করে সুদীপ নিজে সংগঠন সাজানোর দায়িত্ব নেবেন।
কংগ্রেসের অন্দর মহলের এই খবরের বাস্তবতার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে সম্প্রতি।কারণ ইদানীং সুদীপ রায় বর্মন তাঁর কর্মীদের নিয়ে করা বৈঠক গুলি আশীষ সাহাকে সামনে এগিয়ে দিয়েছিলেন।সংবাদ মাধ্যমের কাছে আশীষ তাদের কর্মসূচি নিয়ে মুখ খুলেছিলেন।রাজনীতিকরা বলছেন, আশীষকে সামনে এগিয়ে দেওয়ার পেছনে সুদীপ রায় বর্মনের যে একটা উদ্দেশ্য ছিলো তা থেকে প্রমাণিত।
কংগ্রেস কর্মীদের ব্যাখ্যা, সদ্য সমাপ্ত পুর ও নগর ভোটে বীরজিতের নেতৃত্বে কংগ্রেস সুবিধা করতে পারেনি।বরং মাত্র তিন মাসের পরিশ্রমে তৃণমূল কংগ্রেস ২৩শতাংশ ভোট দখল করে।এর পেছনে কংগ্রেসের সাংগঠনিক ব্যর্থতা দায়ী। তার দায়ভার অবশ্যই নিতে হবে বীরজিতকে। কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি বীরজিত সিংহের রাজ্য জুড়ে তেমন কোনো জনপ্রিয়তা নেই।তুলনামূলক ভাবে সুদীপ রায় বর্মনের জনপ্রিয়তা অনেক বেশি।তাছাড়া বীরজিত সিংহের বয়স ৭০ঊর্ধ্ব। দলের সমস্ত অংশের নেতা-কর্মীদের মধ্যে সুদীপ-আশীষের জনপ্রিয়তা রয়েছে।এই কারণেই তাদের হাতে দলের ব্যাটন দিতে প্রস্তুত কংগ্রেসের হাই-কমান্ড। সুদীপ-আশীষ জুটিও কংগ্রেসের মরা গাঙে জল আনার জন্য তাদের সর্বশক্তি উজাড় করে দেবেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.