ডেস্ক রিপোর্টার,১৪সেপ্টেম্বর।।
                 আবারও দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডা:মানিক সাহা। তিনি যে অন্যদের তুলনায় ব্যতিক্রম তা আবারও প্রমাণ করলেন। মঙ্গলবার তিনি রেলে করে কুমারঘাটে যান। আবার রেলে চড়েই ফিরে আসেন আগরতলায়। এর আগে মুখ্যমন্ত্রীরা অবশ্যই জেলা ও মহকুমা সফরে গেলে যাতায়াতের জন্য হেলিকপ্টার ব্যবহার করতেন। এক্ষেত্রে তিনি এই সরকারের প্রাক্তন মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবকেও টেক্কা দিয়েছেন। এবং পূর্বতন বাম সরকারের গরীব মুখ্যমন্ত্রী মনিক সরকারকেও বার্তা দিয়েছেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ডা:মনিক সাহা।
               পূর্ব ঘোষিত সূচি অনুযায়ী মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী গিয়েছিলেন কুমারঘাটে।সেখানে গিয়ে মূখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করেন। কিন্তু মূখ্যমন্ত্রী ডা:মনিক সাহা আগরতলা থেকে কুমারঘাটে যাওযার জন্য ব্যবহার করেন নি হেলিকপ্টার। রাজ্য সরকারের ব্যয় সংকোচনের জন্য  মুখ্যমন্ত্রী হেলিকপ্টারে না চরে ভরসা করলেন রেলে। একটু সময় বেশি লাগলেও  রাজ্যের মানুষের কাছে নিজের স্বচ্ছ ইমেজকে তুলে ধরলেন সামনে। মুখ্যমন্ত্রী ইচ্ছা করলেই হেলিকপ্টারে যেতে পারতেন।কিন্তু তিনি  তা করেন নি। স্বচ্ছ ইমেজের মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গে রেলে বসেই আগরতলা থেকে রেলে করে কুমারঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।
              


চলন্ত রেলে মুখ্যমন্ত্রী তার সহযাত্রী অল্প বয়সীদের সঙ্গে নানান বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। এবং এই সংক্রান্ত বিষয় মুখ্যমন্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুলে ধরেন। রেল যাত্রার সময় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গী ছিলেন “মোদি@২০: ড্রিমস মিট ডেলিভারি” নামক বইটি।  মুখ্যমন্ত্রী বলেন,
“এটি একটি অন্তর্দৃষ্টিপূর্ণ বই ।  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যাত্রার একটি বর্ণনা, যেখানে তিনি অদম্য ইচ্ছা শক্তি আর অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে দেশের অন্তিম ব্যাক্তিরও উন্নয়ন করেছেন। যার ফলস্বরূপ এখন আমরা এক পুনরুত্থিত ভারতবর্ষকে দেখছি। এই উত্থানের পেছনের চিন্তাভাবনা এবং কৌশল বোঝার জন্য আমাদের এই বইটি অবশ্যই পড়া উচিত।”
           মুখ্যমন্ত্রীকে রেলে দেখে সাধারন যাত্রীরা একটু অবাক হয়েছেন।কারণ এর আগের মুখ্যমন্ত্রী জেলা ও মকুমা সফরে গেলে তাদের ভরসা ছিলো হেলিকপ্টার। পূর্বতন বাম সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মনিক সরকার থেকে সদ্য প্রাক্তন হওয়া মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এক্ষেত্রে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ডা: মনিক সাহার চিন্তাভাবনা অন্যদের তুলনায় পৃথক। সাধারন মানুষ মুখ্যমন্ত্রী ডা: মনিক সাহার এই ভাবনার ভুয়সী প্রশংসা করেন।

              

Leave a Reply

Your email address will not be published.