ডেস্ক রিপোর্টার, ১৫জুন।।
“আমার বাড়িতে নাকি সিবিআই যাবে, ইডি যাবে, তারা যদি সত্যিই আমার বাড়িতে যায়, তাহলে আমার ৭৫ বছরের বৃদ্ধা মাকে পাবে। আর কিছুই পাবে না । আমার মা আমার কাছে অমূল্য সম্পদ।”—বক্তা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। মঙ্গলবার তিনি ৬-আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী ডা:অশোক সিনহার সমর্থনে অনুষ্ঠিত জনসভায় একথা বলেন তিনি।
বিপ্লব কুমার দেব বলেন, ২০১৮ নির্বাচনে আমরা কমিউনিস্টের বিপরীতে লড়েছিলাম । কিন্তু আজ ৬ আগরতলা, টাউন বড়দোয়ালীর নির্বাচনে আসল তরমুজ নেতাদের চেহারা ফুটে উঠেছে । এই দিনের জন্যই আমি অপেক্ষায় ছিলাম, কখন তাঁদের আসল চেহারা বেরিয়ে আসবে। নাম না করেই কংগ্রেস নেতা সুদীপ রায় বর্মন ও আশীষ সাহাকে উদ্দেশ্য করেই একথা বলেছিলেন বিপ্লব কুমার দেব।

সুদীপ-আশীষকে কটাক্ষ করে বিপ্লব কুমার দেব বলেন, এখান থেকে যারা জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছিলেন তারা নরেন্দ্র মোদির বিরোধিতা করেছে। তারা বিবেক ভোটের ডাক দিয়েছিলেন। যতবার উপনির্বাচন বা কোনো নির্বাচন হয়েছে তখনই তারা পার্টি এবং জনগণের সঙ্গে বেইমানি করেছে। ২৫ বছর এরা ত্রিপুরার জনগণের সঙ্গে বেইমানি করেছে।
“কংগ্রেস ও সিপিআইএমের মিতালী এখন লুকানোর আর কিছু নেই। কিছুদিন পরে এটা আরো প্রকাশ্যে চলে আসবে।” বলেছেন বিপ্লব কুমার দেব।তিনি তিপ্রামথার সুপ্রিমো প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ” প্রদ্যুত কমিউনিস্টরা তোমার পরিবারের সাথে কি করেছে সেটা তুমি দেখেছো। আর আমাদের সরকার জনজাতিদের জন্য যদি কিছু করে থাকে, তাহলে আসো অশোকবাবুর সঙ্গে একই মঞ্চে এসে জনজাতি ভাই বোনদের আপিল করো আমাদের সমর্থন করার জন্য। কারণ একমাত্র মোদী রাজ্যের জনজাতিদের জন্য তেরোশো কোটি টাকার বাজেট বরাদ্দ করেছেন।আগরতলা বিমানবন্দরের নাম মহারাজা বীর বিক্রম এর নামে করেছেন, বড়মুড়ার নাম হাতাই কতর করেছেন এবং গন্ডাছড়ার নাম গন্ডাতুইসা করেছেন। ২৩ বছর ধরে যে রিয়াং শরণার্থী সমস্যার সমাধান হচ্ছিলনা সেটাও তিনি করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.