ডেস্ক রিপোর্টার, ১৫জুন।।
রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠনের পর নেশা মুক্ত ত্রিপুরা গড়ার ডাক দিয়েছিলেন তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। সরকার গঠনের কয়েক মাসের মধ্যেই নেশা কারবারীদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছিলো পুলিশ প্রশাসন। গ্রেফতার করা হয়েছিলো নেশা কারবারীদের।এবং মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত বেশ কয়েকজন অরক্ষাকর্মীদেরও গ্রেফতার করা হয়েছিলো। তখন রাজ্যের নেশা বাণিজ্য শ্লথও হয়েছিলো।
কিন্তু বিজেপি সরকারের বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যের মাদক কারবারের অলিন্দ আরও সুঠাম হয়ে উঠে। বাড়তে থাকে মাদক কারবারের নেটওয়ার্ক। প্রতিদিন রাজ্যের কোথায়ও না কোথায়ও পুলিশ মাদক দ্রব্য উদ্ধার সহ কারবারীদের গ্রেফতার করেছে। হঠাৎ করে রাজ্য জুড়ে মাদক কারবারীরা মাথা চাড়া দেওয়ার ঘটনা প্রত্যেকের মনেই একটা খটকা তৈরি হয়। এই ‘খটকা’ তৈরি হয়েছে রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহার মনেও।

স্বচ্ছ ইমেজের মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা তথা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী তা গোপন রাখতে পারেননি। তিনি প্রকাশ্যে প্রশ্ন তুলেছেন,নেশা কারবার কেন বন্ধ হচ্ছে না? সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা ৮-টাউন বড়দোয়ালি কেন্দ্রের ভট্টপুকুর এলাকায় নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বলেন, “রাজ্যে নেশামুক্ত ত্রিপুরার স্লোগান দেওয়া হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু কার্যত কিছুই হচ্ছে না।নেশামুক্ত ত্রিপুরা কেন হচ্ছে না,আমি তা দেখবো।” একথা তিনি স্পস্ট ভাবে পুলিশ আধিকারিকদেরও নাকি জানিয়ে দিয়েছেন।

মুখ্যমন্ত্রী সটান বলেন, ” নেশামুক্ত ত্রিপুরার কথা মুখে বলা এবং কাজে বাস্তবায়িত না হওয়া, এমন রাজনীতি আমি করতে চাই না।” রাজনীতিরা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা কাকে এবং কাদেরকে এই বার্তা দিয়ে চেয়েছেন তা পরিস্কার জনমনে।আর নেশা বিরোধী অভিযান সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে পুলিশের প্রতি যে মুখ্যমন্ত্রীর আস্থা নেই তাও জলের প্রকট হয়ে গেছে জনমনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.