কমলাসাগর ডেস্ক ।।১৫সেপ্টেম্বর।।
গেলেন।
দেখলেন এবং জয় করলেন।
তিনি প্রদেশ বিজেপি’র কান্ডারী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।
বুধবার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব গিয়েছিলেন বিশালগড় মহকুমার কমলা সাগর মন্ডলের ভূঁইয়ার মাথায়।তিনি অংশ নিয়েছিলেন কমলা সাগর মন্ডলের উদ্যোগে আয়োজিত ভারতীয় জনতা পার্টির জনসভায়।
এদিনের জনসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন,
“আমি আপনাদের মধ্যে থেকেই উঠে এসেছি, আমি আপনাদেরই লোক।” মুখ্যমন্ত্রী দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন,”আমি এই রাজ্যের মানুষের আশীর্বাদকে পাথেয় করেই মানুষের কল্যানে কাজ করার উৎসাহ পায়।
কমলা সাগরে মুখ্যমন্ত্রীর জনসভায় ভিড় হয় উপচে পড়া।প্রচুর মানুষের সমাগম ঘটে।তার মধ্যে মহিলাদের সংখ্যা ছিলো লক্ষ্যনীয়। জনসভায় মাতৃশক্তির সমাগম দেখে মুখ্যমন্ত্রীর বলেন, তাঁর জীবনের সঞ্চিত অভিজ্ঞতা থেকে দিনের এই কর্মসূচিতে উপস্থিত বড় মাত্রায় মহিলারা বুঝিয়ে দিয়েছেন বর্তমানে মহিলা শক্তিকরণ ও তাদের জন্য সুরক্ষিত পরিবেশ তৈরী হয়েছে। স্ব-সহায়ক দল গঠন বা অন্যান্য সুযোগ তৈরির ফলে মহিলাদের রোজগারের নয়া দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে।
জনতার উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, জনসভায় আসা লোকজনের মধ্যে স্বস্তির ছাপ দেখে তিনি বিশ্বাস করেন রাজ্যের পরিচালন ব্যবস্থাপনা ও সমৃদ্ধ ত্রিপুরা নির্মাণের লক্ষ্যে সঠিক দিশায় অগ্রসর হচ্ছে সরকার।
কমলা সাগরের জনসভাতেও মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের হাত ধরে এদিন ধস নামে বিরোধী শিবিরে। কংগ্রেস-সিপিআইএম ছেড়ে ভোটাররা শামিল হয়েছে বিজেপি’র পতাকা তলে। ৯৩৮ পরিবারের ৩৫৮৫ জন ভোটার ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেন। নবাগতদের দলে স্বাগত জানিয়ে তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিকাশের ধারায় বিশ্বাস রেখেই বিভিন্ন দল থেকে মানুষ ধারাবাহিক ভাবে ভারতীয় জনতা পার্টির পতাকা তলে শামিল হচ্ছেন বলেই মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী।তাঁর ভাষণে ভেসে আসে এই বক্তব্য।
মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব ভূঁইয়ার মাথার জনসভা থেকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন বামেদের।তিনি বলেন, পূর্বতন বাম সরকার স্বর্ণ যুগের নামে রাজ্যের মানুষের সঙ্গে বেইমানি করেছে।১৪হাজার কোটি টাকা ঋণের বোঝা চাপিয়ে গেছে রাজ্যের মানুষের মাথায়।এখন সেই ঋণ চুকাতে হচ্ছে। সন্ত্রাস প্রসঙ্গ টেনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,২০১৭ সালে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের জামানায় রাজ্যে বিজেপি’র ১১জন কার্যকর্তা খুন হয়েছে। আর বিজেপি সরকারের জামানায় বিরোধী দলের একজন কার্যকর্তা খুন হয়নি।কারণ বিজেপি হিংসার রাজনীতি করে না।
এদিনের জনসভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যে বিজেপি সভাপতি ডা: মানিক সাহা, রাজ্যের বিজেপি সহ-সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য সিপাহীজলা জেলা সভাধিপতি সুপ্রিয়া দাস দত্ত, সিপাহীজলা জেলার উত্তর অংশের বিজেপি সভাপতি অঞ্জন পুরকায়স্থ, কমলাসাগর মন্ডলের সভাপতি সুধীর চৌধুরী, কমলাসাগর মন্ডলের যুব মোর্চার সভাপতি বিকাশ সাহা, সিপাহীজলা জেলা পরিষদের সদস্য বিশ্বজিৎ সাহা সহ অন্যান্য নেতৃত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.