ডেস্ক রিপোর্টার,১৭মে।।
রাজ্য বিজেপি’র সহ-সভাপতি অমিত রক্ষিতের সোশ্যাল মিডিয়ায় অর্থনৈতিক কুৎসা রটানোদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিজেপি’র পক্ষ থেকে খোয়াই থানায় মামলা দায়ের করেছে। রাজ্য বিজেপি’র বক্তব্য, দলের ‘নিষ্কলুষ’ সহ-সভাপতি অমিত রক্ষিতকে কালিমালিপ্ত করতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে বিরোধী সিপিআইএম।। বিজেপি’র নেতৃত্বের বক্তব্য, খোয়াইয়ের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত।এবং সর্ব অংশের মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন অমিত রক্ষিত।তাঁর জনপ্রিয়তা দেখে ভরকে উঠেছে বিরোধী দল সিপিআইএম। তাদেরকে তাড়া করছে আতঙ্ক। আতঙ্ক থেকেই অমিত রক্ষিতের নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুল তথ্য দিয়ে বদনাম ছড়ানোর অপচেষ্টা শুরু করেছে বামেরা। কিন্তু বামেদের এই অপচেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে সাধারণ মানুষ। রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহাকে অভিনন্দ জানিয়ে মঙ্গলবার অমিত রক্ষিতের নেতৃত্বে খোয়াইয়ে বিশাল মিছিল করে বিজেপি।এই মিছিল প্রমান করে দেয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অমিত রক্ষিতের বিরুদ্ধে তোলা আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ আম জনতা পা দিয়ে মাড়িয়ে দিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলা আর্থিক কেলেঙ্কারি’র অভিযোগ প্রসঙ্গে পাল্টা জবাব দিয়েছেন প্রদেশ বিজেপি’র সহ-সভাপতি অমিত রক্ষিত। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন,”কোথাও একটা কাগজ চিপকে ব্রেকিং নিউজ বানানোদের বিরুদ্ধে এফ আই আর করা হলো থানায় । আমি নাকি ২১৭ কোটি টাকার কেলেঙ্কারি করেছি খোয়াইতে । ষড়যন্ত্র করার সময় অঙ্কটা বিশ্বাস যোগ্য রাখার চেষ্টা করবেন , অবশ্য পড়াশোনা কম থাকলে কিছু করার নেই ।একজন রাজনৈতিক সাংবাদিক আবার পোস্টার বানিয়ে সবাইকে ব্যাক্তিগত উদ্যোগে সামাজিক মাধ্যমে পাঠাচ্ছেন ।নোংরামো করে নয় ক্ষমতায় আসতে গেলে ভোটে জিতেই আসতে হবে ।”

বিজেপি’র রাজ্য নেতা অমিত রক্ষিত পরিষ্কার করে বলেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ২১৭কোটি টাকার কেলেঙ্কারি মানুষের কাছে বিশ্বাস যোগ্য হবে না। আসলে ষড়যন্ত্রকারীরা ২১৭কোটি টাকার বহরটাই বুঝতে পারেনি। বিজেপি নেতা অমিত রক্ষিত ষড়যন্ত্রকারীদের মুখে ঝামা ঘষে দিয়ে তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.