।অভিনেত্রী ডোগার টুডু।

ডেস্ক রিপোর্টার,১৮মে।।
এক সময় পশ্চিম বাংলার গুণীজনদের কদর ছিলো।কিন্তু এখন গুনীদের “ডাস্টবিনে” ফেলে দেওয়া হচ্ছে। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে “অশ্লীল” ভাষায় কবিতা লেখার জন্য দেওয়া হয়েছে বাংলা আকাদেমি সাহিত্য পুরস্কার। অথচ বাংলা স্বীকৃতি দিচ্ছে না অনেক ‘রত্ন’কেই।তার প্রমান পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়ার মেয়ে ডোগার টুডু। এই বিষয়টি নিয়ে সরব রাজ্য বিজেপি’র নেতৃত্ব। এই ইস্যুতে প্রকারন্তে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দিলেন রাজ্য বিজেপি’র সহ-সভাপতি অমিত রক্ষিত।

অমিত রক্ষিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ডোগার টুডুর একটি ছবি পোস্ট করে বলেন,” “পশ্চিম বাংলার পুরুলিয়ার মেয়ে ডোগার টুডু এই বছরের দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারের প্রাপক। তিনি একজন অভিনেত্রী। সাঁওতালি ভাষার “আশা” ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রী। কিন্তু বাংলা এই রত্নগুলোকে স্বীকৃতি না দিয়ে তারা মুখ্যমন্ত্রীকে পুরষ্কার দেয় অশ্লীল ভাষায় কবিতা লেখার জন্য।”
এটা বাস্তব, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাহিত্য পুরস্কার দেওয়ার পর ঝড় ওঠে এপার-ওপারের বাংলায়। তসলিমা নাসরিন থেকে শুরু করে জয় গোস্বামী, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় সবাই মমতার সমালোচনা করেন। ত্রিপুরার সাহিত্য ও রাজনীতির জগতেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাংলা আকাদেমি সাহিত্য পুরস্কার দেওয়ার বিষয় নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.