কলকাতা ডেস্ক:১৮সেপ্টেম্বর।।

ফের মমতা-অভিষেকের মাস্টার স্ট্রোক।বাংলায় জোর ধাক্কা খেলো বিজেপি।দল ছাড়লেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়।তিনি যোগ দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে।নিঃসন্দেহে গায়ক তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিজেপি’র সঙ্গ ত্যাগের প্রভাব পড়বে বাংলার রাজনীতিতে। বাবুল সুপ্রিয় দল ত্যাগের পর নানান প্রশ্ন উঁকি দিচ্ছে বিজেপি’র অন্দর মহলে।রাজনীতিক বলছে, বাবুল সুপ্রিয়র বিজেপি ত্যাগের প্রভাব পড়তে পারে ত্রিপুরাতেও।কারণ, ত্রিপুরাতে গায়ক বাবুল সুপ্রিয়ের অনেক ফ্যান রয়েছে।স্বাভাবিক ভাবেই বাবুল সুপ্রিয়ের বিজেপি ত্যাগে বাংলার পাশাপাশি ত্রিপুরার তৃণমূল কংগ্রেসও লাভবান হবে।
বাবুল সুপ্রিয় শনিবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দলীয় উত্তরীয় পড়িয়ে দেন বাবুল সুপ্রিয়কে। অভিষেকের অফিস থেকে বেরিয়ে বাবুল সুপ্রিয় সাংবাদিক বৈঠক করেন।সঙ্গে ছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সভার সাংসদ ডেরেক।
বাবুল সুপ্রিয় সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন,” তিনি হৃদয় থেকেই দল পরিবর্তন করেছেন।মাত্র চারদিনের সিদ্ধান্তে এই দল পরিবর্তন।” সম্প্রতি বাবুল সুপ্রিয় বলেছিলেন, তিনি আর রাজনীতি করবেন না। কিন্তু এখন বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।তবে বিজেপি সম্পর্কে তিনি কিছু বলতে চান নি।কেন বিজেপি ছেড়েছেন? এই প্রশ্নেরও উত্তর দেননি।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বাবুল বলেন,কেন্দ্রীয় মন্ত্রী থাকাকালীন তিনি সাধ্য মত কাজ করেছেন।একজন গায়ক হলেও সংসদে তিনি রাজনীতিবিদ হিসাবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন।বাবুল সুপ্রিয়র কথা থেকে স্পস্ট, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পদ থেকে সরানোর কারণেই হয়তো বা অভিমান করেছেন বাবুল।এই জন্যই শেষ পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অফার পেয়ে আর দেরি করেন নি বাবুল সুপ্রিয়।লুফে নেন মমতার দেওয়া অফার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.