ডেস্ক রিপোর্টার,১৯মার্চ।।
” ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের বাজেট মরুভূমির মরীচিকা।এই বাজেট রাজ্যের সর্বনাশ ডেকে এনেছে। এই বাজেট কালো বাজেট”।—বক্তা প্রদেশ কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা গোপাল রায়ের।শনিবার আগরতলায় কংগ্রেস সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্য সরকারের পেশ করা বাজেট নিয়ে তীব্র সমালোচনা করতে গিয়ে একথা বলেন গোপাল রায়।
কংগ্রেস নেতা গোপাল রায় বলেন, পূর্বতন বাম সরকার রাজ্যকে ১১হাজার কোটি টাকার ঋণে ফেলে গিয়েছিলো। আর বর্তমান বিজেপি সরকার রাজ্যের মানুষকে ঋণ থেকে উদ্ধার না করে আরো ঋণের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে। গোপাল রায় রাজ্য বিধানসভার তথ্য দিয়ে বলেন, বিজেপি সরকার তার সময় কালের প্রথম অর্থবর্ষে অর্থাৎ ২০১৮ -১৯ অর্থবর্ষে ১হাজার৯শ ৯৩কোটি ঋণ করেছে। ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে সরকারের ঋণের পরিমাণ ছিলো ২হাজার ৪শ ৩০কোটি। ২০২০-২১ অর্থবর্ষে রাজ্য সরকার ঋণ করেছিলো ২হাজার ১শ ৮৮কোটি টাকা। ২০২১-২২ অর্থবর্ষে ঋণের পরিমাণ ছিলো ৩হাজার ৪শ ৯৮ লক্ষ টাকা।এবং চলতি অর্থবর্ষে ঋণের পরিমাণ ৩৩৫৬কোটি ৫২লক্ষ টাকা। সর্বমোট পাঁচটি অর্থবর্ষে রাজ্য সরকার ঋণ করেছে ১৩হাজার ৬১কোটি ৪০লক্ষ টাকা।
কংগ্রেস নেতা গোপাল রায়ের দাবি, ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে বাজেট জন বিরোধী বাজেট। এই বাজেটে বেকারদের কর্মসংস্থানের কোনো কথা নেই। নেই রেগার মজুরি বৃদ্ধির কথা। বাজেটে স্থান পায় নি কর্মচারীদের ২৮শতাংশ বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেওয়ার কথা। গোপাল রায়ের অভিযোগ, বিজেপি সরকার তাদের দেওয়া ভিশন ডকুমেন্টের প্রতিশ্রুতি পালন করেনি।সরকার রাজ্যের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে।
প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক গোপাল রায়ের বক্তব্য, করোনাতে মৃত ব্যক্তিদের পরিবারকে ১০লক্ষ টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার ক্ষতি পূরণ বাবদ ১০লক্ষ টাকা পায়নি। ১০৩২৩ ইস্যুতে রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রীকে কাঠগড়ায় তুলেন এই বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা। এডিসির বঞ্চনা নিয়েও সরব হয়েছেন তিনি।
সর্বপরি রাজ্য সরকারের ভাষায় “আত্মনির্ভর” বাজেটকে “কালো” এবং “লোক ঠকানো” বাজেট বলে আখ্যায়িত করেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা তথা বনমালীপুরের প্রাক্তন বিধায়ক গোপাল রায়। ঘুরিয়ে বললে প্রদেশ কংগ্রেস। কংগ্রেস ভবনে এদিনের অনুষ্ঠিত সাংবাদিক বৈঠকে গোপাল রায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের মুখপাত্র প্রশান্ত ভট্টাচার্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.