ডেস্ক রিপোর্টার,১৯ আগস্ট।।
জয়েন্ট রিক্রুটমেন্ট বোর্ড অফ ত্রিপুরা অর্থাৎ জেআরবিটি’র গ্রুপ “সি” ও গ্রুপ “ডি”-র পরীক্ষা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুললেন বিজেপি’র বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন। শাসক দল বিজেপি’র বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন জেআরবিটি’র পরীক্ষা বাতিলের দাবি জানান। এবং দুর্নীতি উন্মোচনে সঠিক তদন্তের দাবিও করেছেন।বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন এই সংক্রান্ত বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন।
জেআরবিটি পরিচালিত গ্রুপ “সি” ও গ্রুপ “ডি” পরীক্ষার দিনক্ষণ ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আগামী ২০ ও ২২আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে পরীক্ষা।কিন্তু এই পরীক্ষার সিলেবাস ও পন্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন খোদ শাসক দলীয় বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন।বিধায়ক তাঁর ফেসবুক পোস্টে দাবি করেছেন,”টিপিএসসি পরিচালিত টিসিএস ও টিপিএস পরীক্ষায় সিলেবাস নির্দিষ্ট করা থাকে।কিন্তু জেআরবিটি পরিচালিত গ্রুপ ‘সি’ ও গ্রুপ ‘ডি’ পরীক্ষার নির্দিষ্ট সিলেবাস নেই।অর্থাৎ সিলেবাস সীমাহীন।
সুদীপ রায় বর্মন তাঁর পোস্টে বলেছেন,” সংশ্লিষ্ট পদে পরীক্ষার জন্য প্রথম পত্রে বাংলা বিষয়টি রাখা হয়েছিলো।কিন্তু হঠাৎ করে বাংলা বিষয়টি বাদ দেওয়া হয়।সুদীপের বক্তব্য, দেশের সর্বত্র বড় বড় পরীক্ষার ক্ষেত্রে স্থানীয় ভাষার বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়ে থাকে।কিন্তু রাজ্যে খুব কৌশলে স্থানীয় বাংলা বিষয়টি বাদ দেওয়া হয়। পরিবর্তে ইংরেজি বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। টিপিএসসি পরীক্ষার ক্ষেত্রে সংবিধান,ইতিহাস ও ভূগোলের ক্ষেত্রে কোন বিষয়ের উপর পরীক্ষা হবে তা নির্দিষ্ট করা থাকে।কিন্তু জেআরবিটি’র পরিচালিত গ্রুপ “সি” ও গ্রুপ “ডি” পরীক্ষার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সিলেবাস নির্দিষ্ট নেই।
সুদীপ রায় বর্মন সোশ্যাল মিডিয়ায় যুক্তি দিয়ে বলেন,এই পরীক্ষার জন্য পিআরটিসি’র কোনো বাধ্য বাধ্যতা নেই।এর ফলে বহিঃ রাজ্যের ছেলে-মেয়েরাও এই পরীক্ষায় বসতে পারবে।সুদীপ রায় বর্মন দাবি করেছেন, বহিঃ রাজ্যের হাজারো বেকার যুবক-যুবতীদের স্বার্থে সিলেবাস পরিবর্তন করে রাজ্যের বেকারদের কৌশলে বঞ্চিত করা হচ্ছে।এই কারণেই সুদীপ রায় বর্মন রাজ্যের বেকার যুবক-যুবতীদের স্বার্থে পরীক্ষা বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।এবং এই বিষয়ে সঠিক তদন্তের প্রয়োজন আছে বলে মনে করছেন। জেআরবিটি পরিচালিত পরীক্ষার নানান বিষয় সামনে এনে ফের রাজ্য বিজেপি’র অন্দর মহলে রাজনৈতিক উষ্ণতা বাড়িয়ে দিলেন বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মন।বলছেন রাজনীতিকরা।
এদিকে জেআরবিটি পাল্টা প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মনের তোলা প্রশ্ন ভিত্তিহীন।কারণ ইংরেজি বিষয়ে আলাদা কোনো পরীক্ষা হবে না। তবে ইংরেজি বিষয়ই সিলেবাসে আগে থেকেই ছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.