ডেস্ক রিপোর্টার,১৯ নভেম্বর।।
আসন্ন পুর ও নগর নির্বাচন প্রহসনে পরিণত হয়েছে।নির্বাচন কমিশন সরাসরি এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত।অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বের। শুক্রবার নির্বাচন কমিশনের সামনে ধর্ণায় বসে এক সুরে এই অভিযোগ করেন তৃণমূল নেতা বাবুল সুপ্রিয় থেকে শুরু করে সুস্মিতা দেব-সুবল ভৌমিকেরা।
প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের আহবায়ক সুবল ভৌমিক বলেন, পুর ও নগর নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে থাকবে না ভিভিপ্যাট, সিসি ক্যামেরা। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী এই সমস্ত বিষয় থাকা দরকার। নির্বাচন কমিশন শাসক দলের সঙ্গে মিলে মিশেই এই কাজ করছে।অর্থাৎ গোটা ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত নির্বাচন কমিশন।
এদিন রাজ্যে আসেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা প্রাক্তন বিজেপি নেতা বাবুল সুপ্রিয়।তিনি রাজ্যে এসে নির্বাচন কমিশনের সামনে তৃণমূল কংগ্রেসের ধর্ণায় যোগ দেন।বাবুল সুপ্রিয় প্লে-কার্ড হাতে নিয়ে বলেন,” আমি টিএমসি মন দিয়ে করি। বিজেপি আর করবো না।কারণ বিজেপি কোনো প্রতিশ্রুতি রাখে নি”।
বাবুল সুপ্রিয় সরব হন, রাজ্যের নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে।তিনি বলেন,ত্রিপুরার বিজেপি সরকার নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করেছে।”
তৃণমূল নেত্রী সুস্মিতা দেব রাজ্য পুলিশের ভূমিকা নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন।তিনি বলেন, পুলিশ আদালত অবমাননা করছে।কোনো ঘটনা হলে যথা সময়ে পৌঁছায় না অকুস্থলে।নির্বাচন কমিশন কাজ করছে তার খেয়াল-খুশি মতো। নির্বাচনে হবে না ভিভি প্যাটের ব্যবহার, হবে না ওয়েব কাস্টিং।
তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব জানিয়ে দেন, এই সংক্রান্ত বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে তারা চিঠি দিয়ে অবগত করেছে। কমিশন কোনো পদক্ষেপ না নিলে তৃণমূল বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে। এদিন নির্বাচন কমিশনের সামনে ধর্ণায় বসেছিলেন, যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সর্ব ভারতীয় সভানেত্রী শায়নী ঘোষ, বিধায়ক আশীষ দাস সহ অন্যান্য বঙ্গ নেতৃত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.