ডেস্ক রিপোর্টার,২০জুন।।
“আগামী ২৩জুন কংগ্রেস- সিপিএমকে ভোট দিলে বড় ভুল করবে এই রাজ্যের মানুষ কারণ তাদেরকে ভোট দিলেন বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কোনো মূল্য থাকবে না।”বক্তা সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে দারাজের ভোটারদের প্রতি এই আহ্বান করেন তিনি।
রাজ্যের কংগ্রেস- সিপিএম সম্পর্কে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মূল্যায়ন, এই দুইটি রাজনৈতিক দল কখনো ত্রিপুরায় প্রতিষ্ঠিত হতে পারবে না । মানুষ কংগ্রেসকেও দেখেছি । টানা ২৫ বছর দেখেছে সিপিআইএমকে।তারা কেউই রাজ্যে আক্ষরিক উন্নয়ন করতে পারেনি।

“বিজেপির একমাত্র বিকল্প শক্তি তৃণমূল কংগ্রেস।” বলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপির চোখে চোখ রেখে কথা বলতে জানে। তৃণমূল বিজেপিকে পরাজিত করেছে। তাই তৃণমূল কংগ্রেসকে নিয়ে ভীতসন্ত্রস্থ বিজেপি। দেশের অন্য কোন বিরোধী রাজনৈতিক দল বিজেপি’র চোখে চোখ রেখে কথা বলতে পারেনা।
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ভোটারদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, আগামী ২৩ জুন মেরুদন্ড সোজা করে আপনারা ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। বিজেপির চোখ রাঙানোকে ভয় পাবেন না । আপনাদের পাশে আছে তৃণমুল। লড়াই করবে মাটি কামড়ে। ত্রিপুরাতে যতদিন না পর্যন্ত গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হয় , ততদিনে তৃণমূল লড়াই চালিয়ে যাবে।
অভিষেকের বক্তব্য , ২০১১ ও ২০১৬ সালের তৃণমূলের সঙ্গে বর্তমান তৃণমূলের অনেক পার্থক্য রয়েছে । গত ১০ মাস আগে তৃণমূল কংগ্রেস ত্রিপুরায় প্রবেশ করেছিল। তখনই কেঁপে উঠেছিল বিজেপির ভীত। তা বুঝতে পেরেছিল গেরুয়া নেতৃত্ব । এই কারণে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা– কর্মীদের উপর ক্রমাগত সন্ত্রাস বর্ষণ করেছিলো বিজেপির দুষ্কৃতীরা। একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের আন্দোলনের জন্যই বিজেপি বাধ্য হয়েছে বিপ্লব কুমার দেবকে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে অপসারণ করতে। এটা অবশ্যই তৃণমূল কংগ্রেসের নৈতিক জয়।
শাসক দল বিজেপিকে এক হাত নিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ২০১৮- র বিধানসভা নির্বাচনে অনেক প্রত্যাশা নিয়ে মানুষ বিজিপিকে এই রাজ্যে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছিল। কিন্তু বিজেপি মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। তারা কোনো প্রতিশ্রুতি পালন করতে পারেনি। বড় বড় আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জড়িত বিজেপি নেতৃত্ব । স্মার্ট সিটি নামে ২৪৫কোটি টাকা এনেছে বিজেপি সরকার। কিন্তু কোন কাজ হয়নি। কোথায় গেল এত টাকা ? প্রশ্ন অভিষেকের।
রাজ্যে সংঘটিত রাজনৈতিক সন্ত্রাস নিয়ে মুখ খুললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন দীর্ঘ ২৫ বছরের বাম জামানার সন্ত্রাসকেও হার মানিয়েছে শাসক দল বিজেপি।
রাজনৈতিক অপরাধের ক্ষেত্রে গোটা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মধ্যে ত্রিপুরার স্থান প্রথম। রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার জুমলাবাজ। তারা ত্রিপুরার মানুষকে ঠকিয়েছে। মানুষ অবশ্যই তা বুঝতে পেরেছে। আগামী দিনে মানুষ বিজেপির প্রতি অনাস্থা প্রকাশ করে তৃণমূল কংগ্রেসকে সাদরে গ্রহণ করবে। এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ, তৃণমূল কংগ্রেসের তৃণমূল কংগ্রেসের ইনচার্জ ব্যানার্জী, এবং সভাপতি সুবল ভৌমিক ও ও রাজ্যসভার সাংসদ সাংসদ সুস্মিতা দেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.