ডেস্ক রিপোর্টার,২০এপ্রিল।।
” ত্রিপুরা জার্নালিস্ট হেলথ ইন্সুরেন্স স্কিম-২০২২”–চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য মন্ত্রিসভা। বুধবার রাজ্য সচিবালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করে একথা বলেছেন তথ্যমন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। মন্ত্রিসভার বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের পৌরোহিত্যেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য মন্ত্রিসভা।
তথ্যমন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন, বিজেপি সরকার ‘মিডিয়া বান্ধব’। রাজ্যের সাংবাদিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সরকার “স্বাস্থ্য বীমা” প্রকল্প শুরু করেছে। তবে তা হবে ৮০:২০ অনুপাতে। অর্থাৎ বৎসরে সাংবাদিকদের স্বাস্থ্য বীমার মোট প্রিমিয়ামের ৮০ শতাংশ দেবে রাজ্য সরকার।এবং ২০ শতাংশ দেবে বেনিফিশিয়ারী( সুবিধাভোগী সাংবাদিক)। এক্ষেত্রে বেনিফিশিয়ারীদের বয়স হতে হবে ২১ থেকে ৬৫ বছর। এই স্বাস্থ্য বীমার সুবিধা পাবে শুধু কর্মরত সাংবাদিক।তার পরিবারের সদস্যরা এর আওতায় আসবে না। সুবিধা ভোগী সাংবাদিকদের অবশ্যই রাজ্য সরকার বা পিআইবি’র সরকারী স্বীকৃতি প্রাপ্ত হতে হবে।
দপ্তরের তথ্য দিয়ে মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন, এখন পর্যন্ত ১৭৭জন সরকারী স্বীকৃত প্রাপ্ত সাংবাদিক রয়েছেন। নতুন ভাবে আরো ২৫০জনের আবেদন পত্র জমা পড়েছে। যারাই বাছাইয়ের পর নতুন ভাবে জমা পড়া আবেদনকারীদের দেওয়া হবে সরকারী স্বীকৃতি।
মন্ত্রী জানিয়েছেন, খুব দ্রুত বীমার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য টেন্ডার ডাকা হবে। টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর সরকার স্বীকৃতি প্রাপ্ৰ পুরানো ও নতুন সাংবাদিকদের হাতে এক সঙ্গে তুলে দেওয়া হবে স্বাস্থ্য বীমার কার্ড।
এদিকে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে সাংবাদিকদের স্বাস্থ্যবীমা প্রদানের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে আগরতলা প্রেস ক্লাব। আগরতলা প্রেস ক্লাব মনে করে এই ইতিহাসিক সিদ্ধান্ত রাজ্যের সাংবাদিকদের জীবনের পথ চলাকে আরো সুদৃঢ় করবে। বিশেষকরে এই সিদ্ধান্তের জন্য রাজ‍্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছে আগরতলা প্রেস ক্লাব। এই বিবৃতিতে এই খবর জানিয়েছেন আগরতলা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক প্রণব সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.