ধর্মনগর ডেস্ক,২১মে।।
শাসক দলের দুই শাখা সংগঠন বিএমএস ও বিবেকানন্দ বিচার মঞ্চের সংঘর্ষে তপ্ত ধর্মনগর রেল স্টেশন চত্বর। আতঙ্কিত রেল যাত্রীরা। শাসক দলের দুই গোষ্ঠীর খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে ফের নিগৃহীত হলেন এক সাংবাদিক। আহত সাংবাদিকের বিকাশ ভট্টাচার্য। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে মামলা দায়ের করা হয় ধর্মনগর থানায়।পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি।অথচ অভিযুক্ত বিএমএস কর্মী তথা টমটম চালক সুব্রত প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে। কিন্তু হাত গুটিয়ে বসে আছে পুলিশ। শনিবার সকালের এই ঘটনা কেন্দ্র করে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন সাধারণ মানুষ।
এদিন আগরতলা থেকে ধর্মনগরে যান বিবেকানন্দ বিচার মঞ্চের রাজ্য নেতা বিপ্লব কর সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। বিবেকানন্দ বিচার মঞ্চের নেতারা ধর্মানগরে পৌঁছতে বিএমএস’র নেতা-কর্মীরা প্রতিবাদ জানায়। এরপরই শাসক দলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে প্রথমে বাকবিতণ্ডা,পরে প্রকাশ্যে মারধর শুরু হয়। দুই পক্ষের নেতা-কর্মীদের মধ্যে চলতে থাকা “ফ্রী স্টাইল” দেখে ভরকে উঠে সাধারণ মানুষ।
এই সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিক বিকাশ ভট্টাচার্য তাঁর পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য ঘটনা ল্যান্স বন্দি করতে থাকেন।তখনই বিএমএস’র এক আধুলি নেতা তথা টমটম চালক সুব্রত কর্তব্যরত সাংবাদিকের ক্যামেরায় হাত দেয়।এবং তাকে ছবি তুলতে বাধা প্রদান করে।ছিনিয়ে নেয় সাংবাদিকের ক্যামেরা। মারধরও করে তাকে। সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে ধর্মনগর থানায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে।
প্রশ্ন হচ্ছে সাংবাদিকরা কেন সফট টার্গেট। কয়েকদিন আগে রাজধানীতে পুলিশ সাংবাদিক নিতাই দে’কে মারধর করেছে।এর আগেও এরকম বহু ঘটনা ঘটেছে।কিন্ত অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সঠিক বিচার পাচ্ছে না সাংবাদিকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.