ডেস্ক রিপোর্টার,২১আগস্ট:
ফের বড়সড় ধাক্কা খেলো প্রদেশ কংগ্রেস।প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন পীযূষ কান্তি বিশ্বাস। তিনি পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন দলের সর্বভারতীয় সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর কাছে। সাংবাদিকদের কাছে পীযূষ কান্তি বিশ্বাস তাঁর পদত্যাগের কথা স্বীকার করেছেন। তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন সোনিয়া গান্ধীর প্রতি।

পীযূষ কান্তি বিশ্বাস জানিয়েছেন,তিনি এখন থেকে আর কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন না।অর্থাৎ রাজনীতি থেকে তিনি সন্ন্যাস নেবেন। বর্তমানে নিজে আইন ব্যবসায় মনোনিবেশ করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি ।
বর্তমান সময়ে রাজ্য কংগ্রেসের অবস্থা তলানিতে।রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস মাথা চাড়া দেওয়াতে দলের একটা অংশ এখন ঘাসফুল শিবিরে ঝুঁকে পড়েছে।ইতিমধ্যে সুবল ভৌমিক সহ কংগ্রেসের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা যোগ দিয়েছেন তৃনমূল কংগ্রেসে। এই পরিস্থিতি সভাপতি পীযূষ কান্তি বিশ্বাস দলের হাল না ধরে বরং তিনি সরে গেলেন। কেন নিজ দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ালেন প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি? প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলে।
রাজনীতিকদের ব্যাখ্যা, প্রথমত তৃণমূলের আগমনের পর কংগ্রেস সংগঠন যে হাওড়ার জলে ভেসে যাবে তা বিলক্ষণ বুঝতে পেরেছেন পীযূষ কান্তি বিশ্বাস। এই পরিস্থিতিতে দলের বৈঠা ধরে রাখতে তাঁর জন্য ব্যর্থতার সামিল।তিনি কংগ্রেসকে ধরে রাখলেও অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে পারবেন না।তার জন্য আগেই তিনি সরে দাঁড়িয়েছেন।
দ্বিতীয়ত, তৃণমূল কংগ্রেস বা বিজেপি’র পক্ষ থেকে পীযূষ কান্তি বিশ্বাসের কাছে বড় কোনো অফারও থাকতে পারে।বড় অফার পেয়েই তিনি কংগ্রেস ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে গোটা চিত্র পরিষ্কার হবে আগামী কিছু দিনের মধ্যেই।যদিও পীযূষ কান্তি বিশ্বাস জানিয়েছেন,এই মুহূর্তে তিনি রাজনীতি থেকে থাকবেন শত যোজন দূরে।তবে এও ঠিক, রাজনীতিতে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।কথা বলবে সময়েই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.