ডেস্ক রিপোর্টার,২২ফেব্রুয়ারি।।
ক্রমেই তেতে উঠছে রাজ্য রাজনীতি।গরম হচ্ছে কড়াইয়ে তেল। রাজ্য রাজনীতির পারদ চড়িয়ে দিতে রাজ্যে আসছেন কংগ্রেসের “পোস্টার গার্ল” প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রা। আগামী ২১মার্চ প্রিয়াঙ্কা রাজ্যে আসবেন।এমন খবর প্রদেশ কংগ্রেস সূত্রের।
প্রদেশ কংগ্রেসের অন্দর মহলের খবর অনুযায়ী, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রা রাজ্যে এসে করবেন জনসভা। প্রিয়াঙ্কার জনসভাতে প্রচুর পরিমান কর্মী-সমর্থকদের জড়ো করে শক্তির মহড়া দেবে কংগ্রেস। প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব ইতিমধ্যেই প্রিয়াঙ্কার রাজ্য সফর নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। প্রিয়াঙ্কার রাজ্য সফরে চমক দেওয়ার চেষ্টা করবে কংগ্রেস। প্রিয়াঙ্কার গান্ধী ভদ্রার হাত ধরেই কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেন বিজেপি’র দুই বিধায়ক দিবাচন্দ্র রাংখল ও বুর্বু মোহন ত্রিপুরা।সঙ্গে বিজেপি’র কয়েকজন বিক্ষুব্ধ নেতাও যোগ দেবেন কংগ্রেসে। রাজধানীর পোস্ট অফিস চৌমুহনীর সাদা বাড়িতে কান পাতলেই শোনা যায় এখবর।
কংগ্রেসের “পোস্টার গার্ল”র রাজ্য সফর নিয়ে উত্তেজনায় টগবগ করছে প্রদেশ নেতৃত্ব সহ দলীয় কর্মী-সমর্থকরা। সুদীপ-আশীষ-বীরজিতরা চাইছেন প্রিয়াঙ্কার রাজ্য সফরের আগে দলীয় সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করতে। প্রদেশ কমিটি থেকে শুরু করে জেলা ও ব্লক কমিটি এবং বুথ স্তরে সংগঠনকে আঁটোসাঁটো করতে কাজ শুরু করে দিয়েছেন সুদীপ-আশীষরা। বিজেপি থেকে বিধায়ক-নেতা-কর্মী-সমর্থকদের ছাড়িয়ে আনতে চেষ্টা করছে নিয়মিত। কংগ্রেস নেতৃত্ব কতটা সফল হবেন তা বলবে সময়েই।
আগামী ২১মার্চের আগেই ঘোষণা হবে উত্তর প্রদেশ সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল। যদি পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের ফলাফল কংগ্রেসের পক্ষে যায় তাহলে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সফরে ব্যাপক প্রভাব পড়বে রাজ্যে।উত্তেজিত হয়ে উঠবে কংগ্রেস রাজনীতি। তারমধ্যে যদি প্রিয়াঙ্কার সভায় বিজেপি’র সঙ্গ ত্যাগ করে বিধায়ক, নেতা-কর্মীরা কংগ্রেসে যোগ দেয়,তাহলে নিশ্চিত ভাবে চাপে পড়বে শাসক দল বিজেপি।এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশারদরা।
চলতি মাসে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল সিপিআইএম রাজ্য সম্মেলন করবে।রাজ্য সম্মেলনে শক্তি প্রদর্শন করবে বামেরা। স্বাভাবিক ভাবেই কংগ্রেসের কাছেও প্রিয়াঙ্কার সভা চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠবে।এই কারণেই কংগ্রেস নেতৃত্ব প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সভাকে সফল করতে অতিরিক্ত খাটা-খাটুনি শুরু করেছে বলেই কংগ্রেস কর্মীদের দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.