ডেস্ক রিপোর্টার,২২জুন।।
রাত পোহালেই রাজ্যের চার কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে উপভোট। উপভোট কেন্দ্র করে বহিরাগত ইস্যুতে সরগরম রাজ্য রাজনীতি । কংগ্রেসের অভিযোগ, শাসক দল বিজেপি বিভিন্ন জেলা থেকে বহিরাগত কর্মীদের রাজধানীর ৬- আগরতলা ও টাউন বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রে জড়ো করেছে।একইভাবে শাসক দল বিজেপি সরাসরি অভিযোগ করেছে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। শাসক দলের দাবি, আগরতলা ও বড়দোয়ালি কেন্দ্রে বহিরাগতদের জড়ো করেছে কংগ্রেস। উদ্দেশ্য সন্ত্রাস সৃষ্টি করা। পাল্টা অভিযোগ কংগ্রেসেরও।

‘বহিরাগত’ ইস্যুতে বুধবার আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী সুদীপ রায় বর্মন সরাসরি দ্বারস্থ হয়েছেন নির্বাচন কমিশনের। সুদীপ রায় বর্মনের অভিযোগ, শাসক দল বিজেপি আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্রে বিভিন্ন জায়গায় বহিরাগত যুবকদের জড়ো করেছে । তাদের দিয়েই ভোটে সন্ত্রাস করাবে শাসক দল। সুদীপের অভিযোগ, এই সমস্ত বহিরাগত যুবকদের দিয়েই ভোটে অশান্তি করাবে বিজেপি। এমনকি তারা ভোট লুঠ করতে পারে।
রাজনীতিকরা বলছেন, ভোটের অন্তিম মুহূর্তে বহিরাগত ইস্যুকেই হাতিয়ার করছে বিজেপি এবং কংগ্রেস। যদিও এই বিষয়ে প্রধান বিরোধী দল সিপিএমের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। বিজেপির নেতৃত্ব বক্তব্য, মানুষ তাদের পাশেই আছে । বিপুল ভোটে জয়ী হবে গেরুয়া শিবিরের প্রার্থীরা। তাদের বহিরাগত যুবকদের জড়ো করার প্রয়োজন নেই। বহিরাগতদের এনে কংগ্রেস ভবন থেকে শুরু করে আগরতলা ও টাউন বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রে বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে দিয়েছে কংগ্রেস।
প্রতিটি বুথে বুথে কংগ্রেসের বহিরাগত লোকজন ইতিমধ্যেই অবস্থান করেছে।যদিও শাসক দল বিজেপি এবং কংগ্রেসের অভিযোগের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে রাজধানীর পুলিশ নানান জায়গায় বহিরাগতদের খোঁজে অভিযান শুরু করেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে পুলিশ এখনও বহিরাগত যুবকদের আটক করতে পারেনি।
রাজনৈতিক বিশারদদের কথায়, রাজ্যে আগেও বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে উপভোগ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে উপভোটে এতটা উত্তাপ ছিলনা । এবার শুধু উত্তাপেই নয়,ভোটের অঙ্কেও অনেক অদল বদল ঘটতে পারে এবার। উপভোট এখন হাইভোল্টেজ পর্যায়ে পৌঁছেছে। উপভোটের ফলাফল আগামী ২৩- র বিধানসভা নির্বাচনের দিক নির্দেশ করবে। ১৮- র বিধানসভা নির্বাচনের আগেও রাজ্যের দুইটি বিধানসভা কেন্দ্রে উপভোট অনুষ্ঠিত হয়েছিল। কিন্তু এই উপভোটে দুইটি আসন দখল করেছিলো তৎকালীন শাসক দল সিপিআইএম। উপভোটে বরাবরই শাসকের জয়জয়কার হয়ে থাকে।এটাই ঘটে অধিকাংশ সময়ে। এবারও রাজ্যের ৪ কেন্দ্রে উপভোটে এগিয়ে আছে শাসক দল বিজেপি। তবে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি অনুযায়ী, শাসকদলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে কংগ্রেস ও প্রধান বিরোধী দল সিপিএম। এই কারণেই উপভোটে হট ইস্যু হয়ে উঠেছে বহিরাগত বিষয়টি। বিশেষভাবে শাসক দল বিজেপি ও কংগ্রেস বহিরাগত ইস্যুটিকে উপভোটে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.