ডেস্ক রিপোর্টার,২৪আগস্ট।।
“বিপ্লব দেবের সরকারকে আঘাত হানা চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।আগরতলা বিমান বন্দরে নামলেই তৃণমূলীদের তালিবানি কায়দায় আক্রমণ করতে হবে।”বক্তা বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিক। বিজেপি’র বিধায়কের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে জল গড়াচ্ছে আদালতে।
তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ত্রিপুরা হাইকোর্টে
দায়ের করা হবে মামলা।খবর ঘাসফুল শিবিরের।
গত ১২ আগস্ট বিলোনিয়ার পুরাতন টাউন হলে বিজেপি’রআশীর্বাদ রেলি অনুষ্ঠানে বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিক কড়া ভাষায় তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণ করেছিলেন।বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিকের বক্তব্য ছিলো, টানা ২৫ বছরের বাম শাসনে অস্থির হয়ে উঠেছিল রাজ্যের মানুষ।বিপ্লব কুমার দেবের নেতৃত্বে পতন ঘটেছিলো বাম সরকারের।ক্ষমতায় আসে বিজেপি সরকার।তৃণমূল কংগ্রেস হঠাৎ করে উড়ে এসে জুড়ে বসতে চাইছে।তারা বিজেপি সরকারকে উৎখাত করার রণ কৌশল নিচ্ছে।বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিক স্পস্ট ভাষায় বলেন,বিজেপি সরকারকে উৎখাত করা তৃণমূলের পক্ষে সম্ভব নয়।রাজ্যের মানুষকে এক কাট্টা হয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নামতে হবে।প্রয়োজনের তাদের করতে হবে তালিবানি কায়দায় আক্রমণ।
বিজেপি’র বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিকের এই বক্তব্য নিয়ে পাল্টা সুর চড়িয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।তাদের বক্তব্য, একজন বিধায়ক কতটা নিচে নামলে একথা বলতে পারেন। তৃণমূলের পক্ষ থেকে জানানো হয় তীব্র প্রতিবাদ। এই ইস্যুতে ইতিমধ্যে তৃণমূল শিবির দ্বারস্থ হবে ত্রিপুরা উচ্চ আদালতের।তারা বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিকের বিরুদ্ধে আদালতে দায়ের করবে মামলা। বিধায়কের দেওয়া বক্তব্যের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছে তৃণমূল।দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক ব্যানার্জীর নির্দেশেই বিজেপি’র বিধায়ক বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেস।
এই প্রসঙ্গে বিজেপি’র বিধায়ক তথা আইনজীবী অরুণ চন্দ্র ভৌমিক বলেন,”আদালত সবার জন্য খোলা।টিএমসি আদালতে মামলা করতেই পারে।” বিধায়ক বলেছেন, ” বাংলার বিজেপি’র এক মুখপাত্র তো মমতাকে তালিবানি নেত্রী বলে উল্লেখ করেছে।মমতা সেখানেও আদালতের দ্বারস্থ হবেন?” প্রশ্ন অরুণ চন্দ্র ভৌমিকের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.