ডেস্ক রিপোর্টার,২৩সেপ্টেম্বর।।
” রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব এখনো সাবালক হতে পারেননি।তিনি নাবালক।”—বক্তা প্রদেশ তৃণমূল নেতা সুবল ভৌমিক।বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কের একথা বলেন তিনি।
সুবল ভৌমিকের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে পাল্টা দেন প্রদেশ বিজেপি’র সভাপতি ডা: মানিক সাহা।তিনি বলেন, “এখন পর্যন্ত রাজ্য রাজনীতিতে বহু সাবালক এসেছেন।কিন্তু তারা কিছুই করতেই পারেনি। নাবালক বিপ্লব কুমার দেবের হাত ধরে রাজ্যে পরিবর্তন এসেছে। এরপর আর বলার অপেক্ষা রাখে না কে নাবালক আর কে সাবালক?”
তৃণমূল নেতা সুবল ভৌমিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, বিপ্লব কুমার দেব সাবালক হলেই রাজ্যে শান্তি ফিরে আসবে।” সুবলের প্রশ্ন কবে মুখ্যমন্ত্রী সাবালক হবেন,তারপর ফিরে আসবে শান্তি?
” এই রাজ্যের রাজনীতিতে বহু নেতা গাছ লাগিয়েছেন।কিন্তু কেউ ফল দিতে পারেনি। বিপ্লব দেব ব্যতিক্রম।তাঁর হাত ধরেই ফল পেয়েছে রাজ্যের মানুষ। সুবল ভৌমিকে কটাক্ষ করে একথা বলেন প্রদেশ বিজেপি সভাপতি ডা:মানিক সাহা। রাজ্য বিজেপি’র সভাপতি সুবল ভৌমিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করে বলেন,”যদি একজন নাবালক সাফল্য এনে দিতে পারে, তাহলে সাবলকরা কেন কেন ব্যর্থ হলেন? এটাও সাবালকদের কাছে চূড়ান্ত লজ্জার বিষয়।”
সাংবাদিক সম্মেলনে তৃণমূল নেতা সুবল ভৌমিক প্রশ্ন তুলেছেন, শুধুমাত্র রাজধানীর দুই থানা এলাকায় কেন ১৪৪ধারা জারি করা হলো? বাদবাকি জায়গাতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জনসভা করছেন। তৃণমূল সহ অন্যান্য বিরোধী দলকে আটকে দিতেই প্রশাসনের এই কারসাজি।
পাল্টা বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্য, আগরতলাতে কোভিডের সংক্রমণ বেশি।এই কারণেই প্রশাসন সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে রাজনৈতিক দলের মিছিল,মিটিংয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।মুখ্যমন্ত্রী অন্যান্য জেলাতে গিয়ে জনসভা করছেন। তৃণমূল কংগ্রেসও করতে পারে।কিন্তু তারা করছে না।বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, তৃণমূলে লোক নেই।তাই শহরের প্রাণকেন্দ্র ব্যতীত অন্য কোথায়ও তারা মিছিল করার সাহস করছে না।
ঘাসফুল শিবিরে পাল্টা হুমকি, “তৃণমূলের ভয়ে কাঁপছে বিজেপি।এই কারণেই মিছিল, মিটিংয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বিপ্লব দেবের প্রশাসন। সব মিলিয়ে রাজনৈতিক তর্জায় সরগরম রাজ্য রাজনীতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.