ডেস্ক রিপোর্টার, ২৩আগষ্ট।।
বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার রাজ্য সফর কেন্দ্র করে তৎপরতা চলছে ভাজপা শিবিরে। জেপি নাড্ডার জনসভা অনুষ্ঠিত হবে এডিসির সদর দপ্তর খুমুলুঙে। নাড্ডার জনসভা স্থল খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার খুমুলুঙ সফর করেন রাজ্যের তথ্য দপ্তরের মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী ও উপজাতি কল্যাণ মন্ত্রী রাম পদ জামাতিয়া। সভাস্থলের মঞ্চ থেকে শুরু করে গোটা মাঠের কাজকর্ম খতিয়ে দেখেন দুই মন্ত্রী। এডিসির ভিলেজ ভোটের প্রাকলগ্নে বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার জনসভা রাজনৈতিকভাবে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। জেপি নাড্ডার সফরের মধ্য দিয়েই শাসক দল বিজেপি ভিলেজ ভোটের দামামা বাজিয়ে দেবে বলেই মনে করছেন রাজনীতিকরা।
বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি জয় প্রকাশ নাড্ডার জনসভার আগে তিপ্রামথা পদ্ম শিবিরকে জোর ধাক্কা দিয়েছে। এডিসির বিরোধী দলনেতা হংস কুমার ত্রিপুরাকে দলে টেনে নেন মথার সুপ্রিমো প্রদ্যুৎ কিশোর।নাড্ডার সফরের প্রাক লগ্নে এটা পাহাড় রাজনীতিতে মথার মাস্টার স্ট্রোক বলা চলে।এই কারনেই তিপ্রামথা কড়া বার্তা দেওয়ার জন্য
নাড্ডার জনসভাকে ঐতিহাসিক রূপ দিতে চাইছে বিজেপি।
মঙ্গলবার রাজ্য মন্ত্রিসভার দুই সদস্য সুশান্ত চৌধুরী ও রাম পদ জমাতিয়া উভয়ই পরিদর্শন করেন জনসভাস্থল। তাদের সঙ্গে ছিলেন ভারতীয় জনতা পার্টির আসাম ও ত্রিপুরা প্রদেশের সংগঠন মহামন্ত্রী ফনীন্দ্র নাথ শর্মা সহ বিজেপির অন্যান্য রাজ্য নেতৃত্ব। জেপি নাড্ডা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি হওয়ার পর এটাই তার প্রথম ত্রিপুরা সফর।এর আগে আরো দুইবার তার সফরসূচি চূড়ান্ত হয়েছিল।কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি অন্য কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে তা বাতিল হয়ে গিয়েছিল। তবে অবশ্যই সভাপতি হওয়ার আগে তিনি রাজ্যে এসেছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই দলের সর্বভারতীয় সভাপতি প্রথম রাজ্য সফর প্রদেশ বিজেপির কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া ভিলেজ ভোটের প্রাক্ত মুহূর্তে জেপির এই সফর পাহাড় রাজনীতির জন্য তাৎপর্যপূর্ণ।
২৩- র বিধানসভা নির্বাচনের আগে জেপি নাড্ডার এই সফরে স্থির হতে পারে রাজ্য বিজেপির পরবর্তী সভাপতি নাম। এবং ২৩’র নির্বাচনে দলের রণনীতি কি হবে তা নিয়েও পর্যালোচনা হবে। ভোট বাজারে মথার সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হবে জেপি নাড্ডার সফরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.