ডেস্ক রিপোর্টার,২৫মে।।
“রাজ্যের জনজাতিদের পশ্চাতে ঠেলে দেওয়ার জন্য দায়ী বাঙালিরা।”— এই অভিযোগ তুলে পাহাড়ের নতুন প্রজন্মকে বিভ্রান্ত করছে তিপ্রামাথা।” দাবি রাজ্য সিপিআইএমের সম্পাদক জিতেন চৌধুরীর।
সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদকের বক্তব্য, এটা তিপ্রামথার ভুল ব্যাখ্যা। জনজাতিদের
পশ্চাতে ঠেলে দেওয়ার জন্য বাঙালিরা দায়ী। জনজাতিদের আজকের এই অবস্থার জন্য দায়ী কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতারাই জনজাতিদের পেছনে ঠেলে দিয়েছে।
জিতেন্দ্র চৌধুরী সরাসরি আঙ্গুল তুলেন, রাজ্যের প্রয়াত প্রাক্তন দুই মুখ্যমন্ত্রী শচীন্দ্র লাল সিং ও সুকুময় সেনগুপ্তের বিরুদ্ধে। জিতেন্দ্র চৌধুরী বলেন, ১৯৪৯ সালের পর থেকে কংগ্রেস নেতারাই জনজাতিদের পেছনের সারিতে সরিয়ে দিয়েছে।
জিতেন্দ্রের অভিযোগ, এক সময় শচীন্দ্র লাল সিং, সুকুময় সেনগুপ্তরা ‘ককবরক ভাষা’কে জঙ্গলি ভাষা বলে অভিহিত করতেন।আর এই ককবরক ভাষাকে বামপন্থীরা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে গেছে। ককবরক ভাষাকে তার অধিকার পাইয়ে দেওয়ার জন্য লিরলস ভাবে কাজ করেছিলো গণমুক্তি পরিষদ।
কমিউনিস্ট নেতা জিতেন্দ্র চৌধুরীর ভাষায়, বিদেশি বিতারনের নামে, গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ডের দাবি পাহাড়ের মানুষকে ভুল পথে পরিচালিত করছে তিপ্রামথা।এবং এক জাতিবিদ্বেষী মনোভাব তৈরির চেষ্টা করছে গোটা পাহাড়ে।তবে এই ভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না।তার জ্বলন্ত দৃষ্টান্ত আইপিএফটি। যেভাবে উঠেছিলো,ঠিক সেভাবেই নীচে নেমে গেছে। মথার অবস্থাও একই হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.