ডেস্ক রিপোর্টার,২৮জানুয়ারি।।
আগামী ২৩ ও ২৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে সিপিআইএমের রাজ্য সম্মেলন। ২৩তম রাজ্য সন্মেলন হবে আগরতলায়। এবং করা হবে প্রকাশ্য সমাবেশও। যদি কোভিড বিধি না থাকে। সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা জানিয়েছেন রাজ্যের বিরোধী দল সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদক জিতেন্দ্র চৌধুরী।
সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদকের বক্তব্য, আগামী এপ্রিল মাসের ৬থেকে ১০ তারিখ কেরলের কননুরে অনুষ্ঠিত হবে সিপিআইএমের ২৩তম পার্টি কংগ্রেস।তার আগেই ব্রাঞ্চ থেকে রাজ্য স্তর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় সম্মেলন। সেই মোতাবেক এখন পর্যন্ত রাজ্যের ২৪টি মহকুমার মধ্যে ২২টিতে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবং ৮টি জেলার মধ্যে পাঁচটি জেলাতে হয়েছে সম্মেলন।বাকি গুলিতে ফেব্রুয়ারি’র দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যেই সম্পন্ন হবে সম্মেলন।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মেলারমাঠ সিপিআইএম রাজ্য সদর দপ্তরে বসে জিতেন্দ্র চৌধুরী রাজ্যের শাসক দল বিজেপি ও পাহাড়ের শাসক দল তিপ্রামথাকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, এডিসিতে এখনো ভিলিজ কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।তা নিয়ে কোনো হেলদোল নেই রাজ্য ও এডিসির। নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হলে পঞ্চদশ অর্থ কমিশন থেকে কোনো অর্থ পাবে না এডিসি।
জিতেন্দ্র চৌধুরী সুর চড়িয়ে বলেন, তিপ্রামথার উদ্দেশ্য নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।তারা গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ড চাইছে নাকি বিজেপি’র হাত শক্ত করতে চাইছে? কমিউনিস্ট নেতা জিতেন্দ্র চৌধুরী সরব হন এডিসি’র বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে। জিতেন্দ্র চৌধুরীর অভিযোগ, এডিসি’র প্রতিনিধিদের আত্মীয় স্বজনরাই এখন পাচ্ছে চাকরি।তা নিয়ে পাহাড়ে হচ্ছে বিক্ষোভও।
রাজ্য সিপিআইএম সূত্রের খবর,২৩তম রাজ্য সম্মেলনে জিতেন্দ্র চৌধুরীকেই পূর্ন সময়ের জন্য রাজ্য সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত প্রাক্তন রাজ্য সম্পাদক গৌতম দাসের মৃত্যুর পর জিতেন্দ্র চৌধুরীকে অস্থায়ী ভাবে বসানো হয়েছিলো রাজ্য সম্পাদকের চেয়ারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.