ডেস্ক রিপোর্টার,২৭মার্চ।।
তপ্ত পাহাড় রাজনীতি। তিপ্রামথার আস্ফালনে রণক্ষেত্র মান্দাই। বিজেপি’র অভিযোগ, তিপ্রামথার অশৃংখল কর্মী-সমর্থকরা মান্দাইয়ে বিজেপি’র পার্টি অফিসে ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেয়। মথার উগ্র সমর্থকরা খোদ লজ্জায় ফেলে দিয়েছে দলের সুপ্রিমো প্রদ্যুত কিশোরকে। মান্দাই বিজেপি’র অফিসের সামনে থাকা আধুনিক ত্রিপুরার রূপকার তথা মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্যের মূর্তি ভেঙে দেয়। রবিবার দুপুরে এই ঘটনা কেন্দ্র করে তথ্থম পরিবেশ বিরাজ করছে মান্দাইয়ে।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী।বিজেপি’র পক্ষ থেকে মান্দাই থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।তবে মান্দাইয়ের এই রাজনৈতিক আগুন পাহাড়ের অন্যান জায়গাতেও ছড়িয়ে পড়বে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্য, রবিবার মান্দাইয়ে ছিলো বিজেপির যোগদান সভা। প্রচুর ভোটার তিপ্রামথা,সিপিআইএম সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কথা ছিলো।এই খবর জানার পর মথার নেতৃত্বের মাথা ঘুরে যায়।তারা এলাকায় হুলিয়া জারি করে। এই অঞ্চলের ঘরে ঘরে মথার কর্মী-সমর্থকরা গিয়ে মানুষকে বিজেপি’র সভায় আসতে বারণ করে।কিন্তু বিজেপি’র কর্মী-সমর্থকরা ছিলো অবিচল।তারা মথার চোখ রাঙানি উপেক্ষা করেও সভা আয়োজন করবে।
গেরুয়া শিবিরের নেতৃত্বের কথায়, মথার উগ্র সমর্থকরা হঠাৎ ছুটে আসে বিজেপি’র সভাস্থলে। এবং চালায় ভাঙচুর।বিজেপি’র কার্যালয়ে থাকা আসবাবপত্র ভেঙে দেয় মথার কর্মীরা। তাদের রোষানল থেকে রক্ষা পায়নি খোদ মহারাজা বীরবিক্রম কিশোর মানিক্য। মহারাজার মূর্তি ভেঙে দেওয়া হয়।ছবিতে ধরিয়ে দেওয়া হয় আগুন। এক সময় মথার দুর্বৃত্তদের তান্ডবে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠে। স্থানীয় মানুষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ ও দমকল বাহিনী। দমকল কর্মীরা কোনো রকমে বিজেপি পার্টি অফিসের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গোটা মান্দাই জুড়ে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.