তেলিয়ামুড়া ডেস্ক,২৮মার্চ।।
সিপিআইএম সহ বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়নের ডাকা দুদিনের ভারত বনধে গোটা রাজ্যের সঙ্গে তেলিয়ামুড়া মহকুমায়‌ও ছিলো স্বাভাবিক ছন্দে।
সোমবার সকাল থেকেই তেলিয়ামুড়াতে বনধের কোনই প্রভাব লক্ষ্য করা যায়নি।
বিগত ২৫ বছর রাজ্যে ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে বামেরা কিছুদিন বাদে বাদে বনধের নামে দোকানপাট, বাজারহাট, অফিস-আদালত, যানবাহন থেকে শুরু করে সমস্ত কিছু বন্ধ করে সাধারণ জনগণের জীবন-জীবিকায় আঘাত হানতো। এমনটাই মনে করছে সাধারণ মানুষ। বর্তমানে রাজ্যের আমজনতা সিপিআইএম’র ডাকা এই কর্মনাশা বনধের কোনো সাড়াই দিচ্ছনা।কারণ, রাজ্যের মানুষ স্পষ্ট ভাবে বুঝে গেছে বামেদের এই বনধ ডাকার ফলে সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকায় আঘাত আনা ছাড়া আর কিছুই হবে না। তাই বামপন্থীদের ডাকা দুনিনের কর্মনাশা ভারত বনধের প্রথম দিনে তেলিয়ামুড়া জুড়ে কোনো প্রভাবই পড়েনি।
এদিন তেলিয়ামুড়ায় বাজার-হাট থেকে শুরু করে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত সহ যানবাহন চলাচল সবকিছুই ছিল স্বাভাবিক। পাশাপাশি সমস্ত ব্যাংকগুলিতেও কাজকর্ম ছিলো স্বাভাবিক ছন্দে। নেই বনধের কোনো ছিটেফোঁটা।তেলিয়ামুড়ার এক যান চালক জানিয়েছেন, অন্যান্য দিনের মতো স্ট্যান্ডগুলিতে সোমবারেও যাত্রী সংখ্যা ছিল স্বাভাবিক। তিনি জানিয়ে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, বামেদের ডাকা এই বনধের কোনো প্রভাব‌ই পড়েনি গোটা মহকুমায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.