ডেস্ক রিপোর্টা, ২৭ আগস্ট।।।
ত্রিপুরায় এসেই জনজাতিদের জন্য কল্পতরু হলেন কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সিতারমণ। ত্রিপুরায় জনজাতি এলাকা উন্নয়নে ১৩০০ কোটি টাকার প্রকল্পের ঘোষণা দিলেন তিনি। তাঁর আশ্বাস, এক সপ্তাহ থেকে ১০ দিনের মধ্যে ওই প্রকল্পের মঞ্জুরি দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। শুক্রবার রাজ্য সফরে এসে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মালা সিতারমণ। জাতীয় সড়ক প্রসারিত করার জন্য এবং আগরতলা স্মার্ট সিটি খাতে খরচের লক্ষ্যে ২১ কোটি টাকার দুইটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছেন। তাঁর মতে, দুরন্ত গতিতে ত্রিপুরায় উন্নয়ন হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত সুবিধা মানুষের ঘর পর্যন্ত পৌছে দিতে ত্রিপুরা সরকারকে সব রকম সহায়তা করবে।

এদিন মোহনপুরে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রী ৮০ হাজার পরিবারে পানীয় জল, ১৩১ কেভি সাব-স্টেশন সহ মোট ১২টি প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন। ওই উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আয়োজিত সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ত্রিপুরা সরকারকে উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার জন্য বাহবা দিয়েছেন।
নির্মালা সিতারমণ’র কথায়, ৩০ বছরে ত্রিপুরায় যে উন্নয়ন হওয়ার কথা ছিল, তা গত তিন বছরে বিপ্লব কুমার দেবের নেতৃত্বে ত্রিপুরা সরকার সম্ভব করে দেখিয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যকে ত্রিপুরা সরকার পূরণ করে চলেছে। তাই, এদিন ১২টি প্রকল্পের একত্রে উদ্বোধন সম্ভব হয়েছে।
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর দাবি, মানুষের কাছে সমস্ত সুবিধা পৌছে দিতে চেষ্টার কোনো ত্রুটি হবে না। এক্ষেত্রে দিল্লিতে যে সুবিধা মিলবে, সেই সুবিধা ত্রিপুরার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও উপলব্ধ হবে। তিনি বলেন, ত্রিপুরার উন্নয়নের প্রশ্নে ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে দুইটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
নির্মালা সিতারমণ’র বক্তব্য,১৪.১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে জাতীয় সড়ক প্রসারিত করা এবং ৭.৪ কোটি টাকা ব্যয়ে আগরতলা স্মার্ট সিটিকে আরও আকর্ষিত করে তোলার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পরিষ্কার ভাবে বলেছেন, রাজ্যের জনজাতি অধ্যুষিত এলাকায় বিদ্যালয় রয়েছে, কিন্ত সেখানে যাওয়ার জন্য রাস্তা নেই। ফলে, মানুষ উন্নয়নের আলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তাঁর কথায়, এখনো ত্রিপুরায় প্রত্যেকের ঘর পর্যন্ত রাস্তা পৌছায়নি। তাই, জনজাতি অংশের মানুষের ভোগান্তির সীমা নেই। তবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার যৌথ ভাবে জনজাতিদের সমস্যার সমাধান করবে।
এদিন রাজ্যে আসে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমণ সারাসারি চলে যান সরকারি অথিতিশালায় সেখানে তিনি বৈঠক করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবে’র সঙ্গে।রাজ্যের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেন।এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী জিষ্ণু দেববর্মন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.