ডেস্ক রিপোর্টার,২৮জুন।।
ভোটের সেমিফাইনালে জয়ের পর ফাইনালকে পাখির চোখ করে রণকৌশল তৈরি করছে রাজ্যের বিজেপি লিড সরকার। সরকার হয়ে উঠছে কল্পতরু। সরকারি দপ্তরগুলিতে নতুন নিয়োগ সহ একাধিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য মন্ত্রিসভা।মঙ্গলবার মহাকরণে সংবাদিক বৈঠক করে রাজ্য মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তথ্য সংস্কৃতি মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী।
মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্তের কথা জানাতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন , স্বরাষ্ট্র দপ্তরে ১ হাজার পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ করা হবে । এরমধ্যে ৫০০ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত এদিনের মন্ত্রিসভার বৈঠকে নেওয়া হয়েছে এবং ৫০০ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত সদ্য অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনের আগেই নেওয়া হয়েছিল। তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী জানান , যুব বিষয়ক ও ক্রীড়া দপ্তরে ১০০ জন জুনিয়র ফিজিক্যাল ইনস্ট্রাক্টর নিয়োগের সিদ্ধান্তও নিয়েছে মন্ত্রিসভা। তাছাড়া কৃষি ও কৃষক কল্যাণ দপ্তরে ৬০ জন এগ্রিকালচার অফিসার পদে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
টিপিএসসি – র মাধ্যমে এগ্রিকালচার অফিসার পদে লোক নিয়োগ করা হবে বলে তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী জানান । তিনি বলেন, মন্ত্রিসভার বৈঠকে সমাজকল্যাণ ও সমাজশিক্ষা দপ্তরের আইসিডিএস প্রজেক্টের অধীনে ২৫ জন সুপারভাইজার নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রাণীসম্পদ বিকাশ দপ্তরে ১৭৯ জন অ্যানিমেল রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিস্টেন্ট নিয়োগের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে । এছাড়াও শিল্প ও বাণিজ্য দপ্তরে মোট ২২ জন লোক নিয়োগ করা হবে। এরমধ্যে সিনিয়র ইনস্ট্রাক্টর পদে নেওয়া হবে ১৬ জন এবং এলডিসি পদে লোক নিয়োগ করা হবে ৬ জন ।
নিয়োগ করা এছাড়াও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিভিন্ন দপ্তরে নতুন পদ সৃষ্টি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । এই সংক্রান্ত বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী জানান , সমাজকল্যাণ ও সমাজশিক্ষা দপ্তরের আইসিডিএস প্রজেক্টের অধীনে ১৯১ টি সুপারভাইজারের পদ নতুন করে সৃষ্টি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা । শ্রম দপ্তরে মোট ২০টি নতুন পদ সৃষ্টি করা হবে। পদগুলির মধ্যে রয়েছে লেবার অফিসার ৬টি , অফিস সুপারিনটেনডেন্ট ১টি , অ্যাকাউন্টেন্ট ৬টি , হেড ক্লার্ক ৫টি এবং ইউডি ক্লার্ক ২টি । এছাড়াও যুব বিষয়ক ও ক্রীড়া দপ্তরে ৬টি ইয়ুথ অর্গানাইজার পদ সৃষ্টি করা হয়েছে ।
সাংবাদিক সম্মেলনে তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী জানান , মন্ত্রিসভার বৈঠকে পানীয়জল ও স্বাস্থ্যবিধান দপ্তরের নতুন ৪ টি ডিভিশন চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । এই ৪টি ডিভিশন হলো জিরানীয়া ডিভিশন , অমরপুর ডিভিশন , কাঞ্চনপুর ডিভিশন এবং সাব্রুম ডিভিশন । রাজ্যে বর্তমানে পানীয়জল ও স্বাস্থ্যবিধান দপ্তরের মোট ৯টি ডিভিশন রয়েছে। এদিনের মন্ত্রিসভার বৈঠকে ডাই – ইন – হারনেসে বিবাহিত মেয়েরাও এখন থেকে চাকরি পাওয়ার যোগ্য বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । এক্ষেত্রে মেয়ের স্বামী যদি অর্থ উপার্জনে অক্ষম হন তবেই মেয়ে চাকরি পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন । এছাড়াও মন্ত্রিসভার বৈঠকে পূর্ত দপ্তরের অধীন বিভিন্ন রাস্তা নির্মাণে বিটুমিনের পরিবর্তে বর্জ্য প্লাস্টিকের ব্যবহার সংক্রান্ত একটি পলিসি গ্রহণ করা হয়েছে । প্রাথমিকভাবে আগরতলা শহরের ৫০ কিলোমিটারের মধ্যে রাস্তা নির্মাণে বর্জ্য প্লাস্টিকের ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.