ডেস্ক রিপোর্টার,২৯জুলাই।।
“গোটা ভারতবাসী যখন স্বাধীনতার পর প্রথম একজন জনজাতি মহিলাকে রাষ্ট্রপতির মতো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আসনে পেয়ে আনন্দে ভাসছে। ঠিক তখন প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী তাঁকে নিয়ে যে কুরুচিপূর্ণ শব্দ প্রয়োগ করলেন, তাতে সমগ্র ভারতবাসীর সাথে আমি নিজেও লজ্জিত।” ……বক্তা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাধীন ভারতে যে দল একটা দীর্ঘ সময় শাসন করেছে, সেই দলের একজন শীর্ষস্থানীয় নেতা তথা সাংসদের মুখ থেকে দেশের রাষ্ট্রপতি সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ শব্দ চয়ন অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের। মুখ্যমন্ত্রী এই ঘটনার তীব্র নিন্দাও জানিয়েছেন।
” দ্রোপদী মুর্মূ দেশের দ্বিতীয় মহিলা রাষ্ট্রপতি। এবং প্রথম জনজাতি মহিলা রাষ্ট্রপতি। দেশের রাষ্ট্রপতি পদটি অত্যন্ত গরিমার। এবং এই পদের সাথে রাষ্ট্র প্রেম জড়িয়ে আছে।” বলেছেন রাজ্যর মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা।
কংগ্রেসকে তীব্র আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “কংগ্রেস দলের মধ্যে কোন প্রকার রাষ্ট্র প্রেম বা রাষ্ট্র ভক্তি আছে বলে মনে হয় না।এই দলের মধ্যে আছে শুধু পরিবার প্রেম।”
রাষ্ট্রপতি দ্রোপদী মুর্মূকে উদ্দেশ্য করে যে কুরুচিপূর্ণ শব্দ চয়ন অধীর রঞ্জন চৌধুরী করলেন, তাতে রাষ্ট্র প্রেম আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে বলে মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী।
গোটা রাষ্ট্রের কাছে শুধু অধীর রঞ্জন চৌধুরী নয়, কংগ্রেস দলকে ক্ষমা চাওয়া উচিত। দাবি মুখ্যমন্ত্রীর। তবে দেশবাসী কংগ্রেসকে এমন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যের জন্য যে কখনো ক্ষমা করবে না,সেই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী নিশ্চিত। মুখ্যমন্ত্রী ডা: মানিক সাহা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের এই বক্তব্য তুলে ধরেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.