ডেস্ক রিপোর্টার,৩০জুন।।
উপভোট শেষ হতেই ২৩র লক্ষ্যে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে রাজ্যের শাসক দল বিজেপি। আগামী ৬ ও ৭ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে প্রদেশ বিজেপির কার্যকারিণী বৈঠক। এবারের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে গোমতী জেলায়। প্রদেশ বিজেপির অন্দরমহল থেকে এই খবর জানা যায়।
কৃষ্ণনগর স্থিত গেরুয়া বাড়ির খবর অনুযায়ী, দুই দিনব্যাপী প্রদেশ বিজেপির কার্যকারণী বৈঠকে মূলত তৈরি করা হবে ২৩ র বিধানসভা ভোটের রুপরেখা। এই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২৩র মহারণের লক্ষ্যে কাজ করবে গেরুয়া শিবির। এই কারণেই এইবারের কার্যকারিনী বৈঠক রাজনৈতিকভাবে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ ।এই বৈঠকে দলের বুথ স্তর থেকে মন্ডল স্তর জেলা স্তর থেকে রাজ্যস্তর পর্যন্ত দলের শক্তির বিচার বিশ্লেষণ করা হবে। কোন কোন জায়গায় দলের এখনো খামতি রয়েছে, তা সনাক্ত করা হবে। এবং বৈঠক শেষে এই সমস্ত সমস্যা নিরসন করা হবে। বৈঠকের আলোচনা করা হবে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে।এই সমস্ত প্রকল্প সাধারণ মানুষের কাছে কত শতাংশ পৌঁছেছে বা আগামী দিনে বাদবাকি মানুষের কাছে এই সমস্ত সরকারি সুযোগ-সুবিধা কিভাবে পৌঁছে দেওয়া হবে তা নিয়ে আলোচনা হবে । এর জন্য নির্দিষ্টভাবে দায়িত্ব দেওয়া হবে রাজ্য স্তরের কার্যকর্তাদের। অর্থাৎ ,২৩র ভোটকে সামনে রেখেই কার্যকারী বৈঠকে বিজেপি ভোটের ফাইনাল ক্যানভাস চূড়ান্ত করবে।
রাজ্য বিজেপির এই কার্যকরিনী বৈঠকের উপর নজর রাখবে বিরোধীরা।কারণ এই বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী বিধানসভা নির্বাচনে রণকৌশল স্থির করবে গেরুয়া শিবির। স্বাভাবিক কারণেই শাসক দলের বৈঠকে বিরোধীদের কাছে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।শাসকের রণকৌশলের উপর ভিত্তি করেই পাল্টা কৌশল তৈরি করবে বিরোধী শিবিরও।
প্রদেশ বিজেপির এই কার্যকারিনী বৈঠকের পর ধারাবাহিকভাবে জেলা থেকে মন্ডল স্তরে এবং বুথ স্তর পর্যন্ত কার্যকারী বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি বৈঠকে সংশ্লিষ্ট নেতৃত্ব প্রদেশ কার্যকারিনি বৈঠকের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেবে এবং এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মন্ডল থেকে বুথ স্তর পর্যন্ত তাদের কার্যকলাপ চলবে। জুলাই মাসের মধ্যেই জেলা থেকে বুথ স্তর পর্যন্ত কার্যকরণী বৈঠকের কর্মসূচি শেষ করতে হবে। এরপর এই কৌশল নিয়েই আগস্ট মাস থেকে রাজ্য বিজেপি সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বে রাজনীতির ময়দানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.