ধর্মনগর ডেস্ক,৩০ জুলাই।।
অসমের করিমগঞ্জ জেলার পাথারকান্দি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় ধর্মনগর থানাধীন নয় বছরের নাবালিকা ধর্ষণ কান্ডের মূল অভিযুক্তকে। ধৃতের নাম রোশন আলী(২২)।তার বাড়ি উত্তর জেলার ধর্মনগর থানার যুবরাজ নগরে। শনিবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।এবং তাকে ধর্মনগরে নিয়ে আসে।
পুলিশ জানিয়েছে,গত ২৮ জুলাই সকাল ১১টা নাগাদ রোশন তার নয় বছরের নাবালিকা পিসতুতো বোনকে ফুসলিয়ে বাড়ির পাশের জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে। পরে সে পালিয়ে যায়।পরবর্তীতে ধর্ষিতা নাবালিকা বাড়িতে এসে তার মা বাবাকে পুরো ঘটনা খুলে বলে। তারা সঙ্গে সঙ্গে ধর্মনগর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানায়।এবং পুলিশ রোশন আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করে।
নাবালিকাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নিয়ে যায় ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে। সেখানেই বর্তমানে মেয়েটির চিকিৎসা চলছে।
ঘটনার পর পরেই অভিযুক্ত রোশন আলী গা ঢাকা দেয়।এদিকে ঘটনার ৭২ ঘন্টা অতিক্রম হয়ে গেলেও অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হওয়াতে পুলিশের ভুমিকা নিয়ে এক রাশ ক্ষোভ উগলে দেয় স্হানীয় লোকজন। পুলিশী ব্যর্থতার প্রতিবাদে অভিযুক্তকে গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার দুপুর নাগাদ মঙ্গলখালি এলাকায় পথ অবরোধ করে বাসিন্দারা। ধর্মনগর থানার পুলিশ অভিযুক্তকে শীঘ্রই গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে প্রায় দুই ঘন্টা পর আন্দোলন কারীরা পথ অবরোধ মুক্ত করে।
এদিন সন্ধ্যায় প্রাপ্ত খবরের ভিত্তিতে ধর্মনগর থানার পুলিশের একটি দল অসমের পাথারকান্দি এলাকা থেকে অভিযুক্ত ধর্ষনকারী রোশন আলীকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। রবিবার ধৃতকে রিমান্ড চেয়ে ধর্মনগর জেলা আদালতে সোপর্দ করবে তদন্তকারী পুলিশ। অনুসন্ধানকারী পুলিশের দাবি,ঘটনার পর রোশন আলী তার পাথারকান্দিস্থিত শ্বশুর বাড়িতে আত্মগোপন করেছিল। এখন থেকেই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.